বান্দরবানে কেএনএফ’র আরও ২ সদস্য গ্রেপ্তার

সিলেটের সময় ডেস্ক :

 

বান্দরবানে ব্যাংক ডাকাতি, অস্ত্র লুট ও ম্যানেজারকে অপহরণের ঘটনায় শুরু হওয়া যৌথ অভিযানে আরও দুজন কেএনএফ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

আজ রবিবার রুমার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাদের আদালতে নেওয়া হলে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বান্দরবান জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিচারক মোহাম্মদ নাজমুল হোসাইন।

গ্রেপ্তাররা হলেন রুমার মুয়ালপী পাড়ার জুয়ামত্লিং বমের ছেলে লাল জার ঙাম বম (৩৮), ইডেন পাড়ার লালচৌও থাং বমের ছেলে তনক্লিং বম (৩৩)।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে রুমার বিভিন্ন এলাকায় যৌথ বাহিনীর পৃথক অভিযানে কেএনএফ সদস্য সন্দেহে ২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে তাদের আদালতে নেওয়া হলে আদালতের বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এ নিয়ে যৌথবাহিনীর অভিযানে রুমা ও থানচির আটটি মামলায় নারী পুরুষসহ মোট ৬৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এর আগে আজ সকালে ডাকাতিতে অংশ নেওয়া জিপ গাড়ির চালক ও কেএনএফ’র এক সহযোগীকে কারাগার থেকে আদালতে নিয়ে এসে সাতদিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন কোর্ট ইন্সপেক্টর একে ফজলুল হক। এসময় আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাজী মহতুল হোসেন তাদের জামিন আবেদন করেন। এরপর শুনানি শেষে বিচারক বিচারক মোহাম্মদ নাজমুল হোসাইন আসামিদের জামিন না মঞ্জুর করে দুইদিন করে রিমান্ডে পাঠান। পরে আসামিদের কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে জেলহাজতে নিয়ে যাওয়া হয়।

বান্দরবানের কোর্ট পরিদর্শক এ কে ফজলুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২ ও ৩ এপ্রিল রুমা ও থানচিতে সোনালী ও কৃষি ব্যাংকে ডাকাতি, ব্যাংক ব্যবস্থাপক অপহরণ, টাকা লুট ও পুলিশ-আনসারের ১৪টি অস্ত্র ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। অপহরণের দুইদিন পরে ব্যাংক ব্যবস্থাপককে উদ্ধার করে র‍্যাব। সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার, অস্ত্র ও টাকা উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‍্যাব, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। অভিযান সমন্বয় করছে সেনাবাহিনী।

এ বিভাগের অন্যান্য