দুই ভাই হত্যাকাণ্ড: ১২ আসামি গ্রেফতার, বিজিবি মোতায়েন

সিলেটের সময় ডেস্ক :

 

ফরিদপুরের মধুখালীর ডুমাইন ইউনিয়নের পঞ্চপল্লীতে মন্দিরে আগুন দেওয়ার অভিযোগে দুই সহোদর নির্মাণ শ্রমিক আরশাদুল ও আশরাফুলকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা নিয়ে এলাকায় এখনো উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এ ঘটনায় পৃথক তিনটি মামলা হওয়ার পর ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এদিকে মঙ্গলবার স্থানীয় জনতার বিক্ষোভ সমাবেশ ও মহাসড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে অবরোধের ঘটনা এবং পুলিশের সঙ্গে বিক্ষুব্ধদের সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে নতুন করে সহিংসতা যাতে না ছড়িয়ে পড়ে সেজন্য ফের ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার জানান, ঘটনার পর থেকে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মোট ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- বিনয় সাহা (৬০), উজ্জ্বল কুমার বিশ্বাস (৪১), গোবিন্দ সরকার (২৮), অনয় ভাদুরী (১৯), রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার আকশুনা গ্রামের উজ্জ্বল কুমার মিত্র (৩৩), একই উপজেলার বিশ্বজিৎ মল্লিক (৫২), সাধুখালী এলাকার কনক বিশ্বাস (২৭), মধুখালী উপজেলার জিনিষনগর এলাকার তপন কুমার মণ্ডল (৪০), একই উপজেলার তারাপুর এলাকার অনুপ রায় (৩১), একই গ্রামের টুটুল চন্দ্র মণ্ডল (৩০), মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার মদনপুর এলাকার প্রসেনজিৎ সরকার (২০) ও একই উপজেলার বড়ালীদহ এলাকার সুজয় বিশ্বাস (১৬)।

পুলিশ সুপার জানান, গ্রেফতারকৃতরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা আদালতে স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

এদিকে দুই সহোদরকে হত্যার ঘটনা নিয়ে অভিযুক্তদের বিচারের দাবিতে মঙ্গলবার স্থানীয় জনতার সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় বুধবার সকাল থেকে ঘটনাস্থলে ফের ৪ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. কামরুল আহসান তালুকদার।

জেলা প্রশাসক জানান, ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে ফরিদপুর সদরসহ মধুখালী, বালিয়াকান্দি ও পঞ্চপল্লী, বাগাট বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে যৌথ বাহিনী টহল পরিচালনায় রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার।

প্রসঙ্গত, গত ১৮ এপ্রিল মধুখালীর পঞ্চপল্লীতে মন্দিরে আগুন দেওয়ার গুজব রটিয়ে পরিকল্পিতভাবে কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিককে পেটানো হয়। এ ঘটনায় দুই সহোদর নিহত হন ও ৫ জন গুরুতর আহত হন।

এ বিভাগের অন্যান্য