‘বিয়ের ছবি দেখলেই সবাই মনে করে আমার বিয়ে’

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

অভিনেতা সিদ্দিকের বিরুদ্ধে পারিবারিকভার অশান্তিসহ ব্যক্তিগত নানা অভিযোগ এনে ডিভোর্স দিয়েছেন মডেল-অভিনেত্রী মারিয়া মিম।   ২০১৯ সালের ১৯ অক্টোবর ডিভোর্স পেপারে স্বাক্ষর করেন মিম।  এ ছাড়া ফেসবুক পোস্টেও সিদ্দিকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আনেন তিনি। বিভিন্ন সময়ে সিদ্দিকও মিমের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন।

এরপর মিম ও সিদ্দিকের পথ আলাদা হয়ে যায়। পরে অনেকেই সিদ্দিককে বিয়ের বিষয়ে প্রশ্ন করতে থাকেন। জানতে চান কবে বিয়ে করবেন সিদ্দিক। কয়েকদিন আগেই বিয়ের অনুষ্ঠানে দেখা যায় সিদ্দিককে। বিয়েপূর্ব হলুদ অনুষ্ঠানের বেশ কিছু ছবি দিয়েছেন সিদ্দিক। প্রথমের দু-একটি বাক্য পড়লেই মনে হবে যে সিদ্দিক বিয়ে করতে চলেছেন। অবশ্য একই প্যারগ্রাফে সিদ্দিক জানিয়ে দিয়েছেন তিনি বিয়ে করছেন না।

ঈদের পরের দিন ছবিগুলো পোস্ট করে সিদ্দিক লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, আজ গায়ে হলুদ সম্পূর্ণ হলো। কাল বিয়ে। তারপর ঢাকার ফিরবো। ’

পরের লাইনেই সিদ্দিক লিখেছেন, ‘বিয়ের ছবি দেখলেই সবাই মনে করে আমার বিয়ে। এটি আমার বিয়াইনের বিয়ে, আমি সেখানে উপস্থিত ছিলাম…’

২০১৯ সালে স্ত্রী মারিয়া মিমের সঙ্গে বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশে অনেক বড় বড় তারকাদেরও ডিভোর্স হয়েছে। আমি সব সময় চেয়েছি এটা যেন নোংরাভাবে না হয়। আমাকে ডিভোর্স দিয়ে মিম মিডিয়াতে কাজ করেই যদি ভালো থাকে, ভালো থাকুক। ’

ডিভোর্সের বিষয়ে মারিয়া মিম বলেছিলেন, ‘অনেক চিন্তাভাবনা করে আমি ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিই। কারণ আমিও মানুষ, আমারও সুন্দরভাবে বেঁচে থাকার অধিকার আছে। একটা দীর্ঘদিনের বেদনা, কান্না এবং চাপা কষ্ট সব কিছু নিয়ে সিদ্দিকুর রহমানের সাথে আমি আমার সম্পর্ক ছিন্ন করেছি। ’

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালের ২৪ মে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিমকে ভালোবেসে বিয়ে করেন সিদ্দিক। তাদের একটি ছেলেসন্তান আছে।

এ বিভাগের অন্যান্য