নারায়ণগঞ্জে কিশোরীকে ১১ দিন ধর্ষণ, ইমাম গ্রেপ্তার

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ১১ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে। এই অভিযোগে একটি মসজিদের ইমামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মসজিদের ইমামের নাম মাওলানা মো. শাহাদাৎ হোসেন (৪৩)।

শুক্রবার ভোরে তাকে ফতুল্লার মাসদাইর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের ফতেহপুর গ্রামের মো. নুরুল ইসলামের পুত্র। সে ফতুল্লার উত্তর মাসদাইরস্থ কেতাব নগর জামে মসজিদের ইমাম ও পার্শ্ববর্তী নূরানী হেফজখানার খতিব।

এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে মেয়েকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ এনে মাওলানা মো. শাহাদাৎ হোসেনকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, তার ১২ বছর বয়সী পুত্র নূরানী হেফজখানায় আবাসিক ছাত্র হিসেবে লেখাপড়া করে আসছিল। মাঝে মধ্যে ছোট ভাইয়ের জন্য খাবার নিয়ে হেফজখানায় যেতো আমার মেয়ে।

যাতায়াতের একপর্যায়ে কিশোরী মেয়েকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় মাওলানা শাহাদাৎ হোসেন। বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের জানালে পরিবারের পক্ষ থেকে মাওলানা শাহাদাৎ হোসেনের সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনা করেন। পরে সে আর কখনো এ রকম আচরণ বা প্রস্তাব দিবে না বলে জানায়।

৮ই এপ্রিল সন্ধ্যা ৭টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের জামতলাস্থ মেলা ফুড ভিলেজে খাবার কেনার জন্য বাসা থেকে বের হয় কিশোরী। পথিমধ্যে মাওলানা শাহাদাৎ হোসেন কিশোরী মেয়েকে ফুসলিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বন্দরের নবীগঞ্জ নেওয়াজ মঞ্জিলের একটি বাসায় নিয়ে আটকিয়ে রাখে। পরে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরে কিশোরী মেয়েকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি দেখিয়ে ১৯শে এপ্রিল বিকালে তার মায়ের বাসায় পাঠিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার উপ-পরিদর্শক হুমায়ুন কবির (২) জানায়, অভিযুক্ত মাওলানাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিশোরীর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য