নারীর পোশাকই ধর্ষণের কারণ: ভিন্নমত দেবলীনার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ঃ

ভারতে ধর্ষণকাণ্ড নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় চলছে। ধর্ষণ ইস্যুতে ‘নারীদের পোশাক’ নিয়ে মন্তব্য করে সম্প্রতি সমালোচনার মুখে পড়েন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। এমনকি তার মন্তব্য ঘিরে তারকা মহলেও ক্ষোভ ছড়ায়। সরব হয়ে ওঠে সামাজিকমাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমও।

এ নিয়ে এক ভিডিও বার্তায় নারীদের পোশাককে ধর্ষণের কারণ হিসেবে ব্যাখ্যার কটাক্ষ করেন বলিউড অভিনেত্রী কাল্কি কেকলা। তার সেই ভিডিওটি এবার শেয়ার করে ধর্ষণের বিরুদ্ধে জোর প্রতিবাদ জানালেন টলিগঞ্জের অভিনেত্রী দেবলীনা কুমার।

কটাক্ষের সুরে সে ভিডিওতে ধর্ষণের জন্য মেয়েদের দায়ী করা হলেও প্রকৃতপক্ষে ধর্ষকদের বিরুদ্ধেই অবস্থান নেওয়া হয়েছে।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে কাল্কি নারীদের উদ্দেশে বলছেন, ধর্ষণের জন্য তুমি দায়ী। তুমি কী পরেছো তা দায়ী। বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে যে, যেসব নারী স্কার্ট পরে, স্কার্টই তাদের ধর্ষণের কারণ হয়। আপনারা জানেন কেন? কারণ, পুরুষদের চোখ থাকে। শুধু স্কার্টই নয়, আরও কয়েক ধরনের পোশাক আছে, যেগুলো নারীদের পরনে দেখলে পুরুষেরা উত্তেজিত হয়।

এমন বক্তব্যের পরই ভিডিওতে ভেসে আসে বেশ কিছু নারীর ছবি। যেখানে কেউ শর্টস, কেউ ফ্রক, কেউ রেনকোর্ট, কেউ বোরখা, কেউবা আবার পরেছেন অ্যাস্ট্রোনটের পোশাক।

কাল্কি কটাক্ষের সুরে এ ম্যাসেজটাই দিতে চেয়েছেন যে, নারীর পোশাক কখনো ধর্ষণের কারণ হতে পারে না। ব্যঙ্গ করে তিনি বলেন, এ সমস্যার সমাধান নারীদের কোথাও না থাকা। এমনকি অপরাধ পুরুষ করলেও দায় নারীকেই নিতে হবে, কারণ নারীই পুরুষের জন্মদাত্রী।

কাল্কির ওই কটাক্ষ ভরা ভিডিও শেয়ার করে দেবলীনাও ব্যঙ্গ করে লিখেন- একদমই এটা আমাদের দোষ আর আমাদের পোশাকের। পোশাক উত্তেজিত হলে এরকম তো হবেই। মেয়েদের জামাকাপড়ই ধর্ষণের কারণ, সবটাই মেয়েদের দোষ।

মূলত কাল্কি ও দেবলীনা দুজনই কটাক্ষের সুরে বলতে চেয়েছেন যে, নারীর পোশাক কখনো ধর্ষণের কারণ হতে পারে না।

এ বিভাগের অন্যান্য