লালমনিরহাটে পুলিশি নির্যাতনে যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

লালমনিরহাটে পুলিশি নির্যাতনে রবিউল ইসলাম খান নামের (২৫) এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের হিরামানিক গ্রামে গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রবিউল ওই এলাকার কাজিরচওড়া গ্রামের দুলাল খানের ছেলে। এ ঘটনার প্রতিবাদে উত্তেজিত জনতা মধ্যরাতে মহাসড়ক অবরোধ ও পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করেছে।

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রবিউল ইসলাম গতরাতে দাবি করেন, হিরামানিক এলাকায় বৈশাখী মেলার পাশেই জুয়ার আসর বসেছিল। সেখানে ধাওয়া করে রবিউলসহ দুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় গাড়িতেই অসুস্থ হয়ে পড়ে রবিউল। পরে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

তবে নিহতের স্বজনরা দাবি করেছেন, রবিউল কোনো দিন জুয়া খেলেননি। তিনি সেখানে শুধু মেলা দেখতে গিয়েছিলেন। সে সময় পুলিশের ধাওয়ায় জুয়াড়িরা পালিয়ে গেলেও মেলা চত্বরে দাঁড়িয়ে ছিলেন রবিউল। সেখান থেকে পুলিশ তাকে আটক করতে গেলে তিনি বাধা দেন। একপর্যায়ে প্রচণ্ড মারধর করে নিয়ে যাওয়ার সময় রবিউল মারা যান।

ওই যুবকের মৃত্যুর খবরে গভীর রাতে হাসপাতালে ছুটে আসেন স্বজনরা। এ সময় সেখানে কান্নার মাতম শুরু হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় নারী-পুরুষরা লাঠি হাতে বাড়ি থেকে বের হয়ে এসে লালমনিরহাট-রংপুর মহাসড়কের মহেন্দ্রনগরে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে ও গাছের গুঁড়ি ফেলে অবরোধ সৃষ্টি করে। এতে অসংখ্য যানবাহন আটকে যায়। উত্তেজিত জনতা এ সময় পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানে ভাঙচুর চালায়। রাত ১টার দিকে শুরু হওয়া অবরোধ ভোর ৪টার দিকে তুলে নেওয়া হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য