মাধবপুরে জাল সনদে ১০ বছর চাকরি করেন স্নিগ্ধা রানী দাস

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

মাধবপুরে জাল নিবন্ধন সনদে চাকরি করতে গিয়ে ধরা খেয়ে ফেঁসে গেলেন এক শিক্ষিকা। ১০ বছর চাকরি করে পাওয়া মোট বেতনের টাকা সরকারী কোষাগারে জমা দিতে নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে তাকে।

উপজেলার ছাতিয়াইন বিশ্বনাথ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের হিন্দু ধর্ম শিক্ষিকা স্নিগ্ধা রানী দাস এই অপকর্ম করেছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরে এক প্রতিবেদনে বলা হয় ২০১২ সালের ১ নভেম্বর তিনি এমপিওভুক্ত হন। সম্প্রতি তার বিরুদ্ধ আপত্তি উঠলে কর্তৃপক্ষের তদন্তে বেরিয়ে আসে স্নিগ্ধা রানী দাসের নিবন্ধন সনদটি জাল। তার এমপিওভুক্ত হওয়ার পর থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১০ লাখ ৬ হাজার ৮৮০ টাকা অর্থ সরকারি কোষাগারে ফেরত যোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন তদন্ত কমিটি।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিরীক্ষা অধিদপ্তরের লোকজন জানতে পারেন স্নিগ্ধার শিক্ষক নিবন্ধন সনদটি জাল। আপত্তি জানিয়ে তাকে পাঠদান থেকে বিরত রাখা হয়েছে।

ছাতিয়াইন বিশ্বনাথ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হারুনুর রশিদ আরও বলেন, অর্থ ফেরত সংক্রান্ত একটি চিঠি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তর থেকে আমরা পেয়েছি। তাকে সরকারী কোষাগারে টাকা জমা দেয়ার বিষয়ে চিঠি দিয়েছে।

 

এ বিভাগের অন্যান্য