পিরোজপুরে দুই স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিং, প্রতিবাদ করায় বৃদ্ধ লাঞ্ছিত

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

পিরোজপুরের কাউখালীতে স্কুলে যাওয়ার পথে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছে দশম শ্রেণির দুই ছাত্রী। এ ঘটনায় কাউখালী থানা ও ইউএনও অফিস বরাবর দুটি লিখিত অভিযোগ জমা দেওয়া হয়েছে ছাত্রীদের পরিবার থেকে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় এক বৃদ্ধকে লাঞ্চিত করার অভিযোগও উঠেছে।

অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের হোগলা-বেতকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে বাসায় ফেরার পথে পশ্চিম বেতকা গ্রামের বেল্লাল হোসেন (২২), মাফিকুল ইসলাম (২০) ও সাকিব হাওলাদার (২১) ওই দুই ছাত্রীর পথরোধ করে তাদের প্রেমের প্রস্তাব দেয় এবং তাদের ফোন নম্বর চায়।

এসময় বখাটেদের কথায় সাড়া না দিয়ে বাসায় চলে যাওয়ার চেষ্টা করলে দুই ছাত্রীকে বিভিন্ন হুমকি প্রদান করে অভিযুক্তরা। পরে ভুক্তভোগীরা কান্না করতে করতে বাসায় পৌঁছে মা-বাবার কাছে বিষয়টা জানায়।

ছাত্রী ও তাদের পরিবার জানায়, প্রতিদিনই বাসা থেকে বিদ্যালয়ের যাওয়ার পথে বিভিন্ন ধরনের কুপ্রস্তাব ও ইভটিজিং করতো বেল্লালসহ তার সহযোগীরা। সে কারণে অনেক দিন বাবা-মাকে সাথে নিয়ে বিদ্যালয়ে যেতো তারা। কিন্তু ওইদিন তাদের সাথে পরিবারের কেউ না থাকায় আবারও ইভটিজিং করে বখাটেরা। তাদের পরিবারের সবাই এ অপরাধের সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

অভিযোগে আরো বলা হয়, ঘটনাটির বিচার চেয়ে প্রধান অভিযুক্ত বেল্লাল হোসেনের গ্রামের পরিচিত এক বৃদ্ধ ও অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ পরিদর্শক মো. হারুন-আল-রশিদের (৬২) কাছে অভিযোগ করে ছাত্রীদের পরিবার। মো. হারুন বিষয়টি জানতে ওই তিন যুবককে ডেকে জিজ্ঞাসা করলে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা। উল্টো তার সাথে অশোভন আচরণ করা হয় এবং একপর্যায়ে গায়ে হাত তোলার অভিযোগ উঠেছে।

অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ পরিদর্শক মো. হারুন-আল-রশিদ বলেন, ইভটিজিং করার একটি অভিযোগ ওঠে আমার গ্রামের কয়েকজন নাতির বয়সী যুবকের নামে। বিষয়টি জানতে এবং তাদের এমন কাজে বারণ করতে ওদের ডেকে জিজ্ঞাসা করি। আমি ইভটিজিং বিষয় সম্পর্কে বোঝানোয় ওরা ক্ষিপ্ত হয় এবং আমার ওপর চড়াও হয়। একপর্যায়ে বেল্লাল হোসেন ও তার সহযোগীরা আমার গায়ে হাত তোলে। এ ঘটনায় আমি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। কিন্তু প্রায় ৩দিন পার হলেও এখনো কোনো সমাধান হয়নি।

এদিকে, এ ঘটনায় দুইটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেন কাউখালী থানার ওসি বনি আমিন। তিনি জানান, গত রবিবার সন্ধ্যায় দুটি অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ঘটনায় সরেজমিনে গেলে অভিযুক্ত তিন যুবককে খুঁজে পাওয়া যায়নি। গ্রামের অনেকেই জানান, এ ঘটনার পর অভিযুক্তরা ঢাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় পালিয়ে গেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য