‘জাকির হোসাইন প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছেন’

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহীদের পক্ষ নিয়ে ষড়যন্ত্র ও মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ এনে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) রাতে বড়লেখা পৌরসভা হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। একই সঙ্গে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করেছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বড়লেখা সদর ইউপির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ছালেহ আহমদ জুয়েল।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে বড়লেখা উপজেলার ১০ ইউপির মধ্যে নিজবাহাদুরপুর, উত্তর শাহবাজপুর, দক্ষিণ শাহবাজপুর, বড়লেখা সদর ও দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। এর মধ্যে বর্ণি, দাসেরবাজার, তালিমপুর, সুজানগর ও দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হেরেছেন। ওই ইউনিয়নগুলোতে নৌকার প্রার্থীদের বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কিছু সংখ্যক বিএনপি-জামায়াত অনুসারীকে নিয়ে কাজ করেছেন এস এম জাকির হোসাইন। এ কারণে ওই ইউনিয়নগুলোতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের ভরাডুবি হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অবৈধ ব্যালটের মাধ্যমে জয় করিয়ে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়েছেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসাইন। এমনকি ভোটের চারদিন পর শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অপ্যায়নসহ গোপন বৈঠকে করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য মদদ দিচ্ছেন। এরই মধ্যে বৈঠকের বিভিন্ন ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। এছাড়া তিনি পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার ও উসকানিমূলক কথাবার্তা বলেছেন। জাকিরের এমন কার্যকলাপে বড়লেখা ও জুড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদে মধ্যে তীব্র উত্তেজনা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন উত্তর শাহবাজপুর ইউপির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন আহমদ, দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ বাবলু প্রমুখ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন বলেন, ‘আমার যা বলার তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বলে দিয়েছি। এখন নতুন করে কিছু বলার নেই।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি বলেছেন, আমার বিরুদ্ধে এসব ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তিনি চ্যালেঞ্জ করে আরও বলেন, প্রার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়টি কেউ যদি প্রমাণ করতে পারেন তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।সূত্র:জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য