সবার বোলিং নকল করতেন মেহেদী

ক্রীড়া ডেস্ক ঃ

খুলনার বৈকালী এলাকার ফকির বাড়ি লেনের শেখ আবদুল মান্নানের ছেলে শেখ মেহেদী হাসান। শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামের কাছে বাড়ি। মেহেদী লেখাপড়া করেছেন কাজী আবদুল বারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শহিদ তিতুমীর ও খালিশপুরের বঙ্গবাসী স্কুলে। এসএসসি পাশ করেছেন ২০১৩ সালে। তার স্বপ্ন ছিল সেনাবাহিনীতে যোগ দেবেন।

ক্রিকেটের জন্য স্কুল পালিয়েছেন। মেহেদীর মা মমতাজ বেগম তাকে শাসনে রাখতেন। মায়ের কথা ছিল, ক্রিকেট খেলো ভালো কথা। তবে অবশ্যই লেখাপড়া ঠিক রেখে। মায়ের কথামতো লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রিকেটে মন দেন।

বোলিং অলরাউন্ডার মেহেদী যুগান্তরকে জানান, বেশিরভাগ সময় শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে পড়ে থাকতেন তিনি। ছোটবেলায় ক্রিকেটের পাশাপাশি ফুটবলও খেলতেন। ২০০৬ সালের দিকে খেলায় আসেন। মেহেদী বলেন, ‘আমি সবার বোলিং নকল করতে পারতাম। এক পাকিস্তানি খেলোয়াড় আমাকে একজন বোলারের বোলিং নকল করার জন্য বলেন। আমি সেটা করে দেখাই। এতে খুশি হয়ে তিনি আমাকে একটি ব্যাট উপহার দিয়েছিলেন।’

ক্লাসিক ক্রিকেট ক্লিনিকের প্রধান কোচ এবং বিসিবি বিভাগীয় ক্রিকেট কোচ এসএম মনোয়ার আলী মনু জানান, মেহেদীকে তারা অনূর্ধ্ব-১৩ লিগে খেলার

সুযোগ করে দেন। মেহেদীর প্রথম দল আবাহনী।

ডান-হাতি অফ-স্পিনার মেহেদী বলেন, ‘২০১৬ সালে এইচপি টিমের হয়ে ইংল্যান্ডে খেলতে যাই। আমার আজকের এই অবস্থানের জন্য বাবা-মা, পরিবারের সহযোগিতা, বড় চাচা শেখ আকব্বর হোসেনসহ অনেকের অবদান রয়েছে। ক্রিকেট একাডেমিতে ভর্তি হওয়ার পর স্কুলে যাওয়ার তেমন সুযোগ হয়নি। ফাঁকি দিয়ে ক্রিকেট প্র্যাকটিসে যেতাম। যার কারণে এখনও এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়া হয়নি। করোনা না হলে দিতাম।’

মেহেদীর জন্ম ১৯৯৪ সালের ১২ ডিসেম্বর। ছয় ভাই-বোন। ২০২০ সালে নড়াইলে বিয়ে করেন তিনি। বাংলাদেশে সাকিব আল হাসান তার প্রিয় খেলোয়াড়। পাকিস্তানের খেলা তার পছন্দের।

এ বিভাগের অন্যান্য