একটি অন্যরকম ছিনতাই

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

চুয়াডাঙ্গায় এক বৃদ্ধা ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই নিয়ে চুয়াডাঙ্গা পুলিশে তোলপাড় চলছিল। অবশেষে শুক্রবার ঘটনার সঙ্গে জড়িত এক শিশুকে থানায় নিল পুলিশ। উল্টো পুলিশের পক্ষ থেকে ওই শিশুকে আর্থিক সাহায্য দিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হলো। বিষয়টি নিয়ে চুয়াডাঙ্গায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানা সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ বাজারের একটি তেলপাম্পের কাছে সারাদিনের ভিক্ষার টাকা গুনছিলেন বৃদ্ধা নিছারন বিবি। এ সময় তার হাত থেকে ছোঁ মেরে টাকাগুলো কে যেন নিয়ে যায়। এতে নিছারন বিবি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

বিষয়টি নিয়ে জেলা পুলিশে তোলপাড় শুরু হয়। অনুসন্ধান চলতে থাকে। অভিযুক্ত ছিনতাইকারীকে ধরতে সদর থানার ওসির নেতৃত্বে এসআই হাসানুজ্জামান বিভিন্নভাবে ভিডিও ফুটেজ জোগাড় করতে থাকেন। অবশেষে শুক্রবার থানায় নিয়ে আসা হয় ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৮ বছরের শিশু পল্টুকে (ছদ্মনাম)।

বিষয়টি নিয়ে থানাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। শেষমেশ ঘোর কাটে পুলিশের। থানায় নিয়ে আসা শিশুর বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে পুলিশ জানতে পারে, শিশু পল্টু খুবই দরিদ্র ও অভাবী ঘরের সন্তান। দীর্ঘদিন তাদের বাড়িতে ভালো খাবার জোটেনি। ঘটনার দিন শিশু পল্টু মায়ের কাছে বায়না ধরে মাছভাত খাবে বলে। গচ্ছিত ৬০ টাকা ছেলের হাতে দিয়ে বাজারে মাছ কিনতে পাঠান মা। কিন্তু শিশু পল্টু বাজারে যাওয়ার পথে ওই টাকা হারিয়ে ফেলে। এ সময় সে দিশেহারা হয়ে পড়ে। কয়েক ঘণ্টা এদিক-সেদিক ঘোরাঘুরি করতে থাকে পল্টু। একপর্যায়ে ভিক্ষুকের হাত থেকে টাকা নিয়ে সে ছোট্ট একটা মাছ নিয়ে বাড়িতে ফেরে।

এমন হৃদয়বিদারক ঘটনা শোনার পর পুলিশ রীতিমতো ঘাবড়ে যায়। পল্টুর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে ভিক্ষুক এবং ওই শিশুর হাতে আর্থিক সাহায্য তুলে দেন সদর থানার ওসি আবু জিহাদ খান। পরে শিশু পল্টুকে তার মায়ের জিম্মায় পৌঁছে দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

 

এ বিভাগের অন্যান্য