করোনা মহামারিতে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান নিক্সন চৌধুরীর

সিলেটের সময় ডেস্ক ঃ

করোনার মহামারিতে যারা ঘরবন্দি হয়ে অসহায়ের মত দিন যাপন করছে সামর্থ্য অনুযায়ী তাদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন।

শনিবার ( ১০ জুলাই) বিকেলে ভাঙ্গা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজিত করোনা মহামারি প্রতিরোধ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

নিক্সন চৌধুরী মনে করেন, ‘করোনাভাইরাস মোকাবিলায় একমাত্র ঔষধ হচ্ছে লকডাউন। সরকার ঘোষিত লকডাউনে যারা দিন মজুর বা মধ্যবিত্ত তারা বেশি বিপাকে পড়েছেন। তাই করোনা যুদ্ধে সকলকে মানবিক দিক বিবেচনায় মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোবল এবং সময় উপযোগী সিদ্ধান্তের জন্যই আজও মহামারির যুদ্ধ করে টিকে আছে বাংলাদেশ।

সভায় ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বলেন, করোনায় দেশ আজ যে অবস্থায় পৌঁছেছে তাতে এখনই আমাদের সচেতন না হলে আগামীতে ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারে। তাই সকলকে সরকারের বিধি নিষেধ মেনে চলতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান বলেন, সরকারের নির্দেশ মেনে চলতে ও চালাতে পুলিশ দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। আর এই পরিশ্রম তখনই সার্থক হবে যখন আপনারা সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলবেন। আইনকে শ্রদ্ধা করে সকলেই ঘরে থাকুন এবং অসহায়দের পাশে মানবিক সাহায্য নিয়ে এগিয়ে আসুন।

জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, করোনার পরিস্থিতি ফরিদপুর জেলায় মহামারি দিক ধাবিত হচ্ছে। সুতরাং সময় থাকতে সকলেই ঘরে থাকুন। একই সাথে করোনায় আক্রান্তদের ও ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে মানবিক সাহায্য নিয়ে পাশে দাঁড়ান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিমউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস,এম হাবিবুর রহমান, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সজিব আহমেদ, সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডাক্তার মহসিন ফকির, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মুন্সি রুহুল আসলাম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ লুৎফর রহমান, হাই-ওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওমর ফারুক, মৎস্য কর্মকর্তা দেবলা চক্রবর্তী, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্য বৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধাগন, বিভিন্ন মসজিদের ইমাম প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য