দাহ্য পদার্থ ঢেলে প্রতিবন্ধীর শরীরে আগুন

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় এক মানসিক প্রতিবন্ধীর শরীরে দাহ্য পদার্থ ঢেলে আগুন ধরিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার নাম আব্দুর রহমান (৪৬)।

সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শহরের বিহারি মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

দগ্ধ আব্দুর রহমান শহরের আড়পাড়া এলাকার মুনছুর খানের ছেলে।

স্থানীয়দের অভিযোগ— রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিহারি মোড়ে এসে আব্দুর রহমান হাঁটাহাঁটি করছিলেন। এ সময় তিনি বিপ্লব নামে একজনের নাম ধরে ডাক দেন।

হঠাৎ হুরাইরা হার্ডওয়্যারের মালিক ও সাবেক কমিশনার মার্জেদ আলীর ছেলে বিপ্লব হোসেন আব্দুর রহমানের শরীরে দাহ্য পদার্থ (তারপিন) ঢেলে ম্যাচ দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন। এ সময় শরীরে আগুন লাগা অবস্থায় এদিক-সেদিক ছোটাছুটি শুরু করে।

পরে এক সেলুন মালিক তার শরীরে একটি তোয়ালে দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

কালীগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুক্তার হোসেন জানান, আব্দুর রহমান একজন মানসিক প্রতিবন্ধী। শহরের বিভিন্ন দোকানে ঘুরে ঘুরে খাবার তুলে খায়। সবাই তাকে পাগল বলেই চেনে। বিভিন্ন সময় সে মানুষের নাম ধরে ডাকে। বিহারি মোড়ের হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী বিপ্লব মানসিক প্রতিবন্ধী আব্দুর রহমানের শরীরে দাহ্য পদার্থ দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা দুঃখজনক।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আহসানুল হক জানান, আব্দুর রহমানের শরীরের ১৭ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে যশোর সদর হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মুহা. মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, মানসিক প্রতিবন্ধীর শরীরে দাহ্য পদার্থ দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা শুনেছি। অবশ্যই এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযুক্ত বিপ্লবকে আটক করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য