গোলাপগঞ্জে নিহত ৪ জনের মধ্যে ৩ জনের পরিচয় মিলেছে

সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের গোলাপগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪ জনের মধ্যে ৩ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে।

নিহতরা হলেন- বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাই ইউনিয়নের বারইগ্রামের মৃত  কুনু মিয়ার ছেলে রাজন আহমদ (২৭), একই গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে ও মাইকোবাস চালক সুনাম আহমদ (২৬) এবং গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের রফিপুর গ্রামের মঞ্জু মিয়ার শিশু পুত্র হাসান আহমদ (৮)।

নিহতদের মধ্যে হাসান আহমদ দুর্ঘটনাস্থলের পাশ্ববর্তী একটি কলোনির বাসিন্দা। দুর্ঘটনার পর মাইকোবাসের সিল্ডিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে সৃষ্ট আগুন উড়ে গিয়ে ওই শিশুর উপর পড়ে। শিশুটি তখন ঘরের বাইরে ছিলো। দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে সে মারা যায়।

বুধবার ভোর সাড়ে ৫ টার দিকে গোলাপগঞ্জের হেতিমগঞ্জ পশ্চিম বাজার এলাকার মোল্লাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, পন্যবাহী একটি ট্রাকের পেছনে যাত্রীবাহী মাইক্রোবাস ধাক্কা দিলে সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় আরও ৪জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মোল্লাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে ট্রাকের পেছনে নোহা মাইক্রোবাসটি ধাক্কা দেয়।  এতে মাইক্রোবাস ও ট্রাকের ভিতরের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ধরে যায়। ঘটনাস্থলেই ৩জন যাত্রী নিহত হন। আহত হন আরো ৪জন যাত্রী। মাইক্রোবাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে পাশ্ববর্তী কলোনিতে গিয়ে পড়ে। এতে মারা যায় শিশু হাসান।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক এলাকাবাসী ৯৯৯ এ কল দিয়ে  গোলাপগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসকে ডেকে আনেন। তারা এসে নিহতদের উদ্ধার করেন এবং গুরুতর আহত অবস্থায় ৪জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতদের মরদেহ ওসমানী হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য