শান্তিনিকেতনে জমি দখলে অমর্ত্যর পাশে মমতা

শান্তিনিকেতনে ‘প্রতীচী’র জমি নিয়ে বিশ্বভারতীর তরফে অভিযোগ ঘিরে যে বিতর্ক তৈরি সেই ইস্যুতে নোবেলজয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের পাশে দাঁড়ালেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

নাম না করে বিজেপি তথা বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে আক্রমণ করে শুক্রবার অমর্ত্য সেনকে এক চিঠিতে মমতা লিখেছেন, ‘বিশ্বভারতীর কিছু নব্য হানাদার সম্প্রতি আপনার পারিবারিক সম্পত্তি নিয়ে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলতে শুরু করেছে।’

সেই সঙ্গে মমতার ঘোষণা, ‘ভারতের সংখ্যাগরিষ্ঠতার গোঁড়ামির বিরুদ্ধে আপনার লড়াইয়ে আমার পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।’ উল্লেখ্য, মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর ‘গেরুয়া রাজনীতির’ কট্টর বিরোধী অমর্ত্য সেনকে বিশ্বখ্যাত নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছে ভারত সরকার।

গুরুদেব রবীন্দ্রনাথের বিশ্বভারতীর শতবর্ষের অনুষ্ঠানে মমতাকে আমন্ত্রণের চিঠি না দেয়া ঘিরে ভারতজুড়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। আর সেই ইস্যুতে কার্যত বাঙালি সেন্টিমেন্টকে ধাক্কা দিতে এবার অমর্ত্য সেনের পাশে দাঁড়িয়ে চিঠি লিখলেন মমতা।

ঢাকার মানিকগঞ্জের আদিবাসিন্দা অমর্ত্য সেনের পরিবারের ঐতিহ্যের কথা উল্লেখ করে মমতা লিখেছেন, ‘অনুগ্রহ করে ভারতে আধিপত্যবাদ এবং অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাকে আপনার বোন এবং বন্ধু হিসেবে গণ্য করুন।’

শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে মমতা ব্যানার্জিকে আমন্ত্রণ না জানানোর অভিযোগ ঘিরে বিতর্ক কলকাতা ছাড়িয়ে দিল্লির রাজনীতির অন্দরে পৌঁছে গেল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে ‘ভার্চুয়ালি’ যোগ দেন আচার্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল ও পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। কিন্তু বিশ্বখ্যাত গুরুদেবের এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শতবর্ষ পূরণের মহতী কর্মসূচিতে অনুপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। আর মমতার এই অনুপস্থিতি নিয়ে দেশ-বিদেশের রবীন্দ্রানুরাগী থেকে শিক্ষাপ্রেমীদের মধ্যে বিতর্কের ঝড় উঠেছে।

বিজেপির আইটি সেলের প্রধান অমিল মালব্যর অভিযোগ, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে অপমান করেছেন মমতা।’ বিশ্বভারতী নিয়ে বিতর্কের জেরে দলের বিজেপির টুইটারে মমতাকে ‘পিসি’ বলে কটাক্ষ করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় নেতা অমিত মালব্য। দলের টুইটার হ্যান্ডলে ‘হ্যাশট্যাগ মমতা ইনসাল্টস গুরুদেব’ প্রচার শুরু হয়ে গেছে দেশব্যাপী।

সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর সরকারি টুইটারের উল্লেখ করে লেখা হয়েছে, ‘সর্বত্র নোংরা রাজনীতি? আমন্ত্রণ পেয়েও বিশ্বভারতীর অনুষ্ঠানে যোগ না দিয়ে মমতাই গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উত্তরাধিকারের অবমাননা করেছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য