ক্যান্সারের পর এবার করোনা ধরা পড়ল অভিনেতা কাদেরের

জনপ্রিয় অভিনেতা আবদুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা নিয়ে আরও একটি দুঃসংবাদ এলো। ক্যান্সার আক্রান্ত কাদেরের করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পায় অভিনেতার পরিবার।

বর্তমানে তিনি রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন। আবদুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে তার পরিবার।

অভিনেতার পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম জেনি জানান, করোনা ধরা পড়ায় তাদের দুশ্চিন্তা অনেক বেড়ে গেছে। ভেবেছিলাম বাবা একটু একটু করে ভালো হয়ে উঠবেন। ক্যান্সারের পর কীভাবে কোন চিকিৎসা হবে, বুঝতে পারছি না।

জেনি চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে আরও জানান, বাবার শরীরে শক্তি কম। তিনি এখন কিছুই খেতে পারছেন না। কিছু খেলেই তার বমি হয়। তাকে এখনও স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে। রোববার থেকে তার রক্তের হিমোগ্লোবিন ৩ থেকে ৫–এর মধ্যে ওঠানামা করছে।

বেশ কিছু দিন ধরে আবদুল কাদের অসুস্থ ছিলেন। ঠিকমতো খেতে পারছিলেন না। একাধিকবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেও তার কোনো রোগ ধরা পড়ছিল না। পরে সর্বশেষ পুরো শরীর সিটিস্ক্যান করে জানা যায়, এ অভিনেতার টিউমার হয়েছে। টিউমার ধরা পড়ার পর পারিবারিক সিদ্ধান্তে ৮ ডিসেম্বর তাকে চেন্নাইয়ের ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ হাসপাতালে আবারও পরীক্ষা–নিরীক্ষা করা হলে ১৫ ডিসেম্বর ডাক্তাররা বোর্ড মিটিং করে এ অভিনেতার পরিবারকে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার খবর দেন।

শারীরিক অবস্থা বেগতিক দেখে চেন্নাইর চিকিৎসকরা তাকে কেমোথেরাপি দিতে পারেননি। ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় আবদুল কাদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। বর্তমানে তিনি এভারকেয়ার হাসপাতালে ডা. ফেরদৌস শাহরিয়ার সাঈদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

১৯৫১ সালে মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ি থানার সোনারং গ্রামে অভিনেতা আবদুল কাদেরের জন্ম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর শেষ করার পর তিনি সিঙ্গাইর কলেজ ও লৌহজং কলেজে অধ্যাপনায় নিযুক্ত হন। পরে জুতা তৈরিকারক প্রতিষ্ঠান বাটায় যোগ দেন ১৯৭৯ সালে; সেখানে ছিলেন ৩৫ বছর।

তার অভিনীত মঞ্চনাটকগুলোর মধ্যে রয়েছে– ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’, ‘এখনও ক্রীতদাস’, ‘তোমরাই, স্পর্ধা’, ‘দুই বোন’, ‘মেরাজ ফকিরের মা’।

টিভিতে তিনি তিন হাজারের মতো নাটকে অভিনয় করেছেন। বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত শিল্পী তিনি।

প্রয়াত কথাসাহিত্যিক ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের বহু জনপ্রিয় নাটকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের হৃদয়ে জায়গা করে নেন কাদের। তিনি হুমায়ূনের ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকে বদিভাই চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান।

২০০৪ সালে আবদুল কাদের অভিনয় করেন ‘রং নাম্বার’ চলচ্চিত্রে।

দীর্ঘ অভিনয় জীবনের স্বীকৃতি হিসেবে টেনাশিনাস পদক, মহানগরী সাংস্কৃতিক ফোরাম পদক, অগ্রগামী সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী পদক, জাদুকর পিসি সরকার পদক, টেলিভিশন দর্শক ফোরাম অ্যাওয়ার্ড, মহানগরী অ্যাওয়ার্ডসহ বেশ কিছু পদকও পেয়েছেন আবদুল কাদের।

এ বিভাগের অন্যান্য