মেয়র আরিফকে নিয়ে শামীমের কটুক্তির নিন্দা অব্যাহত

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য, সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের টানা দুইবারের নির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়ে জাসদ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আবুল কাহের শামীম স্থানীয় একটি পত্রিকায় সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে যে কটুক্তিমূলক মন্তব্য করেছেন তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিলেট জেলা ও মহানগর, মহানগর হকার্স দল এবং সিলেট জেলা শাখার আওতাধীন ১৯ টি ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।

এক যুক্ত বিবৃতিতে কেন্দ্রীয় শ্রমিকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি মোঃ সোরমান আলী,হবিগঞ্জ জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি মোঃ ইসলাম তাফাদার তনু,,সাধারণ সম্পাদক এডঃ বজলুর রহমান,, মৌলভীবাজার জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি হাজী মোঃ রশিদ আহমদ রশিদ,,সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম উদ্দিন,, সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিকদলের সভাপতি মোঃ হুমায়ন কবির।সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ আব্দুল মতিন।

সিলেট জেলা শ্রমিকদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ মাসুক এলাহী চৌধুরী,, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুর রহমান,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমদ। সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শামসুল ইসলাম।

মহানগর শ্রমিকদলের সভাপতি মোঃ ইউনুস মিয়া,,সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ সামসুল ইসলাম,, সাধারণ সম্পাদক লিটন আহমদ চৌধুরী,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক, মোঃ খোকন ইসলাম।

মহানগর হকার্স দলের সভাপতি মোঃ আব্দুল আহাদ, সিনিয়র সহসভাপতি মোঃ নুরুল ইসলাম,, সাধারণ সম্পাদক ইশরাত জাহান খোকন,সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ হোসেন,,হোটেল রেস্তোরাঁ শ্রমিকদলের সভাপতি মোঃ নুরুল ইসলাম,, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুস ছামাদ বলেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের রাজনীতির মাধ্যমে যখন আরিফুল হক চৌধুরীর রাজনীতির হাতেখড়ি, স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে যিনি বিএনপিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, শুধু তাই নয়- সিলেটের উন্নয়নে যিনি আলোকিত সিলেটের রূপকার হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন, সিলেট অঞ্চলে বিএনপিকে ইর্ষান্বিত পর্যায়ে পৌঁছে দিয়েছেন এবং দীর্ঘদিন দলের জন্য কারাভোগ করেছেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়ার আদর্শকে লালন করে যিনি অদ্যাবধি দল ও জনগণের রাজনীতি করে যাচ্ছেন সেই আরিফুল হক চৌধুরীকে নিয়ে জাসদ ছাত্রলীগের মাধ্যমে রাজনীতি শুরু করা এবং জিয়াউর রহমানের আদর্শ ও রাজনীতির বিরুদ্ধে পুরো যৌবন কাটিয়ে বিএনপিতে যোগ দেয়া আবুল কাহের শামীমের কটুক্তিমূলক মন্তব্য হাস্যকর।

এই কটুক্তি বিএনপির প্রতিষ্টাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শের সাথে সাংঘর্ষিক। এবং দলীয় গঠনতন্ত্র বিরোধী ও দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী। এর ফলে দলের স্হানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে নতুন করে পক্ষে বিপক্ষে মতো পার্থক্য তৈরি হয়ে দলীয় শান্তি শৃঙ্খলা নষ্ট হয়ে অশান্তি সৃষ্টি হচ্ছে।

আমরা মনে করি- এই কটুক্তিমুলক মন্তব্য করে আবুল কাহের শামীম মুলত দলের বৃহত্তর ঐক্য বিনষ্ট করার পায়তারা চালাচ্ছেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের মনোনীত মেয়র প্রার্থী হিসেবে টানা দুইবার ‘ধানের শীষ’ প্রতীক নিয়ে সিলেটের জনগণের ভালোবাসা ও সমর্থন নিয়ে যিনি নিবাচিত হয়েছেন এবং সারা বাংলাদেশের মধ্যে একজন জনপ্রিয় মেয়র হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন, জনগণের কল্যাণে বিএনপির প্রতিনিধিত্ব করে যাচ্ছেন তাকে নিয়ে বিতর্কিত কর্মকান্ডের জন্য দুই দুইবার বহিষ্কৃত আবুল কাহের শামীমের মুখে এমন মন্তব্য একেবারেই মানায় না।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, গত ৬ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের ব্যানারে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তারা যেখানে বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের পরবর্তী সকল সরকার অবৈধ, আবুল কাহের শামীম সেই বক্তব্যকে সমর্থন দিয়ে এসেছেন। এরপর আর আবুল কাহের শামীম বিএনপি করার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন বলে আমরা মনে করি।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আবুল কাহের শামীমের এইধরণের বিতর্কিত বক্তব্য অবিলম্বে প্রত্যাহার করে দলের নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনার জোর দাবী জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য