সিলেটে ঘুম ভেঙেছে পুলিশের, গ্রেফতার ৩

সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশের নাকের ডগায় সুরমা মার্কেট। এই মার্কেটে নারী ব্যবসা, জুয়া, তীর খেলাসহ এমন কোন অপরাধ কর্মকান্ড নেই যা ওই মার্কেটে হয় না। একাধিকবার পুলিশ ওই মার্কেটে অভিযান চালালেও রহস্যজনক কারণে স্থায়ীভাবে বন্ধ হচ্ছে অপরাধ। পুলিশের অভিযানেও যখন অপরাধ কমছে তা হলে ফারাক রয়েছে পুলিশের মধ্যে। সুরমা মার্কেটে জাল দলীল, সীল, ভুয়া ভিসা, ভুয়া ভোটার আইডিসহ সবকিছু তৈরী হয় টাকার বিনীময়ে ওই মার্কেটের অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) পুলিশ অভিযান চালিয়ে জেলা প্রশাসক, ওসি, আইনজীবী, ব্যাংক কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি বেসকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তাদের নামে তৈরী ৩৮টি সীল উদ্ধার করেছে সুরমা মার্কেটের আলম নামের এক ব্যক্তির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে। এসময় প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেছে পুলিশ। এরআগে বুধবার (৯ ডিসেম্বর) কোতোয়ালি থানার এসআই দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল সুরমা মার্কেটস্থ আলমের দোকানে এ অভিযান পরিচালনা করে।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, গোলপগঞ্জের পূর্ব মদনগৌরি গ্রামের জমির আলীর ছেলে মুজিবুর রহমান (৩৫) মোগলাবাজার থানাধীন তোরোকখলা গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে ইসলাম উদ্দিন (৩৫) ও একই থানাধীন তেলিপাড়া সিলাম গ্রামের লালা মিয়ার ছেলে রাসেল মিয়া (৩২)

বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোতোয়ালি থানার ওসি সেলিম মিঞা। তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। প্রতারক চক্রটি সরকারি, বেসরকারি, পুলিশ, ডিসি, পাসাপোর্ট অফিসের সীল তৈরী করে প্রতারণা করে আসছে।

এ বিভাগের অন্যান্য