ইরান ১২ গুণ বেশি ইউরেনিয়াম মজুদ করায় উদ্বেগে সৌদি

২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে করা পরমাণু সমঝোতা চুক্তি উপেক্ষা করে ১২ গুণেরও বেশি ইউরেনিয়াম মজুদ করেছে ইরান।

ইন্টারন্যাশনাল অ্যাটমিক এনার্জি এজেন্সির (আইএইএ) তথ্যমতে, এখন ইরানের সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদের পরিমাণ প্রায় ২ হাজার ৪৪২.৯ কেজি। খবর বিবিসির।

ইরানের ইউরোনিয়াম সমৃদ্ধকরণে উদ্বিগ্ন সৌদি আরব।  মূলত পারমাণবিক বোমা তৈরিতে এ ইউরেনিয়াম ব্যবহার করা হয়।

সৌদি আরবের ধারণা ইরান পরমাণু বোমা তৈরির খুব কাছাকাছি পর্যায়ে চলে এসেছে।  সমৃদ্ধ এ সব ইউরেনিয়াম দিয়ে যেকোনো সময় বানিয়ে ফেলতে পারে মারণাস্ত্র।

তবে ইরান সব সময়ই দাবি করে আসছে যে, তারা শান্তিপূর্ণ কাজে ব্যবহারের জন্য পারমাণবিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে।

এর আগে গত সেপ্টেম্বরে ইউরেনিয়ামের মজুদ ১০ গুণ বাড়ায় ইরান। সে সময় ইরানের ইউরেনিয়ামের মজুদের পরিমাণ ছিল ২ হাজার ১০৫ কেজি।

আইএইএ বলছে, অঘোষিত স্থানে পারমাণবিক উপাদানের উপস্থিতির পক্ষে ইরানের ব্যাখ্যা বিশ্বাসযোগ্য নয়।

এদিকে তেহরানের বিরুদ্ধে ‘চূড়ান্ত পদক্ষেপ’ নিতে বিশ্বনেতাদের আহ্বান জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ।

তিনি ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপনাস্ত্র কর্মসূচি ঠেকাতে দেশটির বিরুদ্ধে চূড়ান্ত পদক্ষেপ নিতে বিশ্বনেতাদের আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে সর্বশেষ গত সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল অধিবেশনে ভাষণ দেন ৮৪ বছরের বাদশাহ সালমান।  সেই ভাষণে তেহরানকে নিয়ে রিয়াদের দীর্ঘ উদ্বেগের কথা জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য