মৌলভীবাজারে তৎপর প্রশাসন, বেড়েছে মাস্কের ব্যবহার

মৌলভীবাজারে হঠাৎ করে বেড়েছে মাস্কের ব্যবহার। মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতে কয়েকদিন ধরে তৎপর রয়েছে জেলা প্রশাসন। একযোগে জেলার সকল ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন। এতে করেই মানুষের মধ্যে বেড়েছে সচেতনতা।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে একযোগে জেলার ৩০টি স্থানে মাস্ক সপ্তাহের উদ্বোধন করেছে জেলা পুলিশ। মৌলভীবাজার শহরের চৌমুহনায় এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জিয়াউর রহমান ও মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াসিনুল হক প্রমুখ। এর আগে জেলার প্রতিটি থানা থেকে সচেতনতা মূলক শোভাযাত্রা বের হয়।

জানা গেছে, মাস্ক চেক পোস্টগুলোতে যাদের মাস্ক থাকবে না তাদের শপথ করিয়ে মাস্ক বিতরণ করা হবে। ঘরের বাইরে মাস্ক ছাড়া প্রবেশে নিরুৎসাহী করা হবে। প্রাথমিক পর্যায়ের কাজ শেষে সচেতনার জন্য প্রয়োজনে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানায় পুলিশ।

গত বুধবার সকাল থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সেকেন্ড ওয়েভ প্রতিরোধে মৌলভীবাজার জেলা শহর ও সকল উপজেলায় একযোগে মোবাইল কোর্ট এর মাধ্যমে অভিযান চালায়। এসময় ৯৫টি মামলায় ১৬ হাজার ৪০০ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার জেলা শহরে ও সকল উপজেলায় দেড় শতাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ২৭ হাজার ৩৫০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। ২৩ নভেম্বর ২৬০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে প্রায় অর্ধ লক্ষ টাকা, ২২ নভেম্বর একযোগে ২০টি স্থানে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৩৯৩ টি মামলায় ৯৩ হাজার ৩৯০ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সেকেন্ড ওয়েভ প্রতিরোধে মাস্ক পরিধান ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ নির্দেশনা রয়েছে। এরপর থেকেই স্থানীয় প্রশাসনের মাঝে তৎপরতা দেখা যায়। এই তৎপরতার কারণে মানুষের মধ্যে মাস্কের ব্যবহার পূর্বের তুলনায় বেড়েছে।

সরেজমিনে মৌলভীবাজার জেলা শহরের কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কিছুদিন আগেই মানুষের মধ্যে মাস্ক ব্যবহারে অনিহা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে মানুষের মধ্যে মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে।

একজন পথচারী বলেন, আগে দেখতাম মানুষ মাস্ককে ভূলেই গেছে। কিন্তু দুই একদিন ধরে মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে।

মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পান্না দত্ত বলেন, এবার প্রথম ধাপে করোনার পর মানুষের মনের মধ্যে মাস্কের ব্যবহার কমে গিয়েছিল। প্রশাসনের তৎপরতার এখন মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে। এতে করে মাস্কের ব্যবহার যেমন বেড়েছে তেমনি মানুষের মধ্যে সচেতনতা বেড়েছে। এই অভিযান অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান তিনি।

ম্যানেজার ষ্টলের স্বত্বাধিকারি সুমেশ দাশ যিশু বলেন, আমাদের দোকানে আগে অনেকেই মাস্ক পরে আসতেন না। কিন্তু দুইদিন ধরে দেখতে পাচ্ছি মানুষের মধ্যে মাস্কের ব্যবহার বেড়েছে।

মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সেকেন্ড ওয়েভ প্রতিরোধে মাস্ক পরিধান ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে একযোগে আমাদের মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হচ্ছে। মোবাইল কোর্ট পরিচালনার পাশাপাশি সচেতনতামূলক কর্মসূচি আয়োজিত হয়েছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। একযোগে মাঠে কাজ করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা, সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটগণ। মাস্ক পরিধান নিশ্চিতে জেলা প্রশাসনের মোবাইল কোর্ট অব্যাহত থাকবে।

এ বিভাগের অন্যান্য