ব্যতিক্রমী রায় : সংসার করার শর্তে ৫০ স্বামীকে সাজা না দিয়ে খালাস

সিলেটের সময় ডেস্ক ,

 

সুনামগঞ্জের পারিবারিক বিরোধ ও নির্যাতনের অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর করা ৫০টি মামলার আসামিদের সাজা না দিয়ে দাম্পত্য জীবনে ফিরে যাওয়ার শর্তে মুক্তি দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) বেলা ১ টায় সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন  ট্রাইব্যুনালের বিচারক  মো. জাকির হোসেন এই ব্যতিক্রমধর্মী রায় দেন। আদালতের হস্তপেক্ষপে স্বামীরা নিজ নিজ পরিবারে কাছে ফিরে আসবেন এমন খবর পেয়ে ফুল নিয়ে এজলাসের সম্মুখে দাঁড়িয়ে  অপেক্ষা করছিলেন মামলার তাদের স্ত্রীরা।

এ সময় অনেক অনেক স্ত্রীকে নিজের শিশু সন্তান কোলে নিয়ে স্বামীর অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

আদালত সূত্র জানায়, নির্যাতনের শিকার হয়ে এই ৫০ নারী তাদের স্বামীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছিলেন। মামলার ফলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে যুদ্ধাংদেহী অবস্থান তৈরি হয়। এতে তাদের সন্তানদের জীবন, নিরাপত্তা, খাদ্য, বাসস্থান, আদর-যত্ন, ভালবাসা, বর্তমান ও ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার মধ্যে ডুবে যায়। স্ত্রী স্বামীর ঘরছাড়া হয়ে সন্তান-সন্ততি নিয়ে এক অনিশ্চিত জীবনের পথে হাটছিলেন। সেই অনিশ্চয়তা জীবনের অবসান ঘটিয়ে সংসারে-সমাজে শান্তি ও সৌহার্দ্যরে পরিবেশ সৃষ্টি করতে আসামিদের খালাস দেন আদালত।

আদালত আরো জানান, শাস্তি নয়, শান্তি, সম্প্রতির সুবাতাস আর ফুলের গন্ধ বিলিয়ে মামলা নিষ্পত্তির মাধ্যমে ৫০টি পরিবারকে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করে স্ত্রীকে স্বামীর নিকট, আর স্বামীকে স্ত্রীর নিকট এবং সন্তানদেরকে তাদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল মা-বাবা উভয়ের সান্নিধ্য লাভের জন্য এই রায় দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, আদলত কর্তৃক ৫০ মামলার আসামিদের খালাস প্রদানের রায়ের পর স্বামী-স্ত্রী পরস্পরকে ফুল ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।  এ সময় আদালত আঙিনায় এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায় অনেক স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানদের। ভাঙনের দ্বারপ্রান্তে দাঁনানো ৫০ টি সংসার আদালে রায়ে জোড়া লাগার এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন মামলার বাদি-বিবাদি, আইনজীবীসহ সাধারণ মানুষ।

এ বিভাগের অন্যান্য