ইউটিউব থেকে শেখা অ্যাক্রোবেটিক দেখিয়ে ঘর পেল শিশু সুমাইয়া

ভোলার মনপুরায় ঘরে বসে ইউটিউব দেখে অ্যাক্রোবেটিক কৌশল রপ্ত করেছে উত্তর চরফৈজুদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া। পরে মনপুরা শিল্পকলা একাডেমি সুমাইয়াকে অ্যাক্রোবেটিক রপ্ত করার সহযোগিতা করে।

বুধবার রাতে ডাক-বাংলো হলরুমে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের সামনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শন করে হতদরিদ্র ছাত্রী সুমাইয়া। এতে খুশি হয়ে বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার একটি ঘর ও জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম  ছিদ্দিক ২০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন।

এদিকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনে কোনো পোশাক ছিল না হতদরিদ্র সুমাইয়ার। পরে ভারপ্রাপ্ত ইউএনওর সহযোগিতায় পোশাকের ব্যবস্থা হলে অ্যাক্রোবেটিক শো দেখায় ওই ছাত্রী।

বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ভারপ্রাপ্ত ইউএনও সেলিম মিয়া হতদরিদ্র সুমাইয়ার চরফৈজুদ্দিন ৭নং ওয়ার্ডের বাড়িতে গিয়ে জেলা প্রশাসকের নগদ ২০ হাজার টাকা তুলে দেন। এছাড়া বিভাগীয় কমিশনারের ঘোষিত ঘর দ্রুত সময়ে দেয়া হবে বলে জানান ইউএনও।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী, হাজিরহাট ইউপি চেয়ারম্যান শাহরিয়ার চৌধুরী দীপক, ইউপি চেয়ারম্যান আমানত উল্লা আলমগীর, শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক জুড়ান মজুমদার ও সুমাইয়ার পঙ্গু বাবা মো. আলাউদ্দিন।

এ বিভাগের অন্যান্য