যাত্রাবাড়ীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে তাহুরা আফরিন তুষি (১৮) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল রোববার দক্ষিণ যাত্রাবাড়ীর পূবালী এলাকার একটি বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

তুষিকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে, না শ্বশুরবাড়ির নির্যাতন সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন তা নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে।

তবে তুষির মা-বাবার অভিযোগ, তাদের মেয়েকে হত্যা করে সিলিংফ্যানে ঝুলিয়ে রেখেছে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

এ ঘটনায় তুষির বাবা আবু তাহের বাদী হয়ে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি মামলা করেছেন।

মামলার পর পুলিশ তুষির স্বামী সাজ্জাদ হোসেন নয়ন, শ্বশুর সালাউদ্দিন আহমেদ ও শাশুড়ি নাসরিন বেগমকে গ্রেফতার করেছে।

তুষির গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার লাঙ্গলকোট থানার পাইট বাইনবাড়ি গ্রামে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে তুষিকে প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে নিয়ে বিয়ে করেন সাজ্জাদ হোসেন নয়ন। খোঁজাখুঁজি করে না
পেয়ে যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা করে তার পরিবার। যার মামলা নং-৩৩, তারিখ ৯-৪-২০১৯।

পরে যাত্রাবাড়ী থানা পুলিশ তুষিকে উদ্ধার করে আদালতের মাধ্যমে মা-বাবার কাছে হস্তান্তর করে।

এর পর ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার পর পুনরায় তুষিকে বিয়ে করেন নয়ন। ৩৩৪/১ দক্ষিণ যাত্রাবাড়ী, পূবালী এলাকার ইঞ্জি. আজগর আলীর বাড়ির ৫ম তলায় ভাড়া থাকতেন। সঙ্গে নয়নের বাবা, মা ও বোন থাকতেন।

২০১৯ সালে নয়ন ও তার মা-বাবার বিরুদ্ধে করা মামলা তুলে নিতে প্রায়ই তুষিকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতেন তারা। তুষিকে তার মা-বাবার কাছে যেতে দেয়া হতো না। এমনকি ফোনেও কথা বলতে দিতেন না নয়ন ও তার পরিবার।

যাত্রাবাড়ী থানার এসআই আব্বাস উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে যুগান্তরকে বলেন, তুষিকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে মামলা হয়েছে। তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য