১২ বছরের মেয়েকে বিয়ে করা সেই বৃদ্ধ কারাগারে

ফরিদপুরের সদরপুরে ১২ বছর বয়সী পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ে করার ঘটনায় মোহাম্মদ ফকির (৬০) নামে সেই বৃদ্ধকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার ভ্রাম্যমাণ আদালত এ আদেশ দেন।

জানা গেছে, মোহাম্মদ ফকির সদরপুর উপজেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের শৌলডুবী গ্রামের মৃত কালু ফকিরের ছেলে। বিয়ের ঘটনাটি ঘটেছে সদরপুর উপজেলার সতেরো রশি গ্রামে।

গোপনে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে গত ২০ অক্টোবর শিশুটির সঙ্গে বৃদ্ধের বিয়ে হয়। বাল্যবিয়ের ব্যাপারে মেয়ের বাবা মো. হাবিব পেয়াদা বাধা দিলে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম গোপনে বিয়ের পিঁড়িতে বসান নাবালিকা মেয়েকে।

এ ঘটনায় মেয়ের বাড়িতে নতুন জামাই হিসেবে মোহাম্মদ ফকির গেলে মেয়ের অন্যান্য স্বজন ও প্রতিবেশীরা তাকে আটক করেন। খবর পেয়ে শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সদরপুর উপজেলার ইউএনও পূরবী গোলদার তাৎক্ষণিক মেয়ের বাড়িতে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে মোহাম্মদ ফকির, মেয়ের মা ফাতেমা বেগম, বিয়ের সঙ্গে জড়িত মেয়ের নানা ও নানিকে আটক করেন।

পরে বাল্যবিয়ের দায়ে বৃদ্ধ মোহাম্মদকে ১ বছরের জেল ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। অর্থ অনাদায়ে আরও ৩ মাসের জেল দেয়া হয়।

এছাড়া মেয়ের মা ফাতেমা বেগমকে ৬ মাসের জেল ও মেয়ের নানা-নানিকে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী হাকিম ও ইউএনও পূরবী গোলদার।

বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭ এর বিভিন্ন ধারায় এ শাস্তি দেয়া হয়। আদালতে দণ্ডিতদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য