বিহারে ‘মোদি-রাহুল’ হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

ভারতের বিহার রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফল আসতে শুরু করেছে। টানটান উত্তেজনার মধ্যে মঙ্গলবার সকাল থেকে শুরু হয় ভোট গণনা।

নির্বাচনের ফলাফলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিজেপি ও নীতীশ কুমারের এনডিএ জোট ও রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস ও লালুপ্রসাদ যাদবের ছেলে তেজস্বী যাদবের ইউপিএ মহাজোটের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এনডিএ জোট কিছুটা এগিয়ে রয়েছে। তারা পেয়েছে ১২৫টি আসন। ১১৫টি আসন নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে মহাজোট। একক বৃহত্তম দল হিসেবে বিজেপিকেও ছাড়িয়ে গেছে তেজস্বীর দল।

বিপরীতে শেষ ভোট হওয়া সত্ত্বেও বিহারের মানুষের তেমন সমর্থন পাননি মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার।

বিজেপি এগিয়ে ৭৩টি আসনে, আরজেডি ৭৪টিতে, নীতীশের দল ৪৩, কংগ্রেস ২১, সিপিআই (এমএল) ১১ এবং সিপিএম চারটিতে এগিয়ে।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষ বলেছেন, হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হলেও বিহারে শেষ পর্যন্ত বিজেপি জোটই সরকার গড়বে। বিহারের ভোট নিয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘লড়াই হাড্ডাহাড্ডি হচ্ছে ঠিকই কিন্তু সরকার গড়বে বিজেপি জোট।’

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যেই ২৮ অক্টোবর থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত মোট তিন ধাপে ভোট গ্রহণ করা হয়। তিনদিন মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে ২৪৩ আসনের ভোটগণনা শুরু হয়।

আর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই জানা যাবে, করোনাকালে দেশের প্রথম ভোটে কার প্রতি আস্থা রেখেছেন বিহারবাসী। বিহারে ১২২টি আসন পেলেই সরকার গঠন করা যাবে।

বুথফেরত সমীক্ষায় কিন্তু পাল্লা ভারী আরজেডি, কংগ্রেস ও বামেদের ‘মহাগাঁটবন্ধন’-এর। বুথফেরত সমীক্ষা সব সময় মিলে যায় এমন নয়।

কিন্তু ভোটের ফলের প্রবণতা বুঝতে এই সব সমীক্ষা মোটের ওপর স্বীকৃত। তার ওপর অধিকাংশ বুথফেরত সমীক্ষাই বলছে, বিজেপি-জেডিইউ-হাম-ভিআইপির এনডিএ জোটকে পেছনে ফেলে সরকার গড়ার দৌড়ে এগিয়ে তেজস্বীর নেতৃত্বে ইউপিএ জোট।

ফলে কিছুটা হলেও এগিয়ে থেকে ভোটগণনার ময়দানে নেমেছেন তেজস্বীরা।

এ বিভাগের অন্যান্য