গাভাস্কারের মতো এত নিচে নামতে পারতাম না: রবি শাস্ত্রী

স্পোর্টস ডেস্ক ,

 

চলতি আইপিএলে পাঞ্জাবের বিপক্ষে বাজে পারফরম্যান্সের কারণে আনুশকাকে জড়িয়ে বিরাট কোহলির প্রতি ‘অশালীন’ মন্তব্য করে বিপাকে পড়েন দেশটির জীবন্ত কিংবদন্তি সুনীল গাভাস্কার।

বিষয়টি নিয়ে সেই সময় ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় শুরু হয়।

এ নিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থন করে গাভাস্কার ওই মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেও বিষয়টি অনেকটাই মাটিচাপা পড়ে।

এক মাস পেরিয়ে যাওয়ার পর আবারও সেই বিতর্কিত ঘটনা সামনে এনে একসময়ের সতীর্থ গাভাস্কারের সমালোচনা করলেন ভারতীয় দলের হেড কোচ রবি শাস্ত্রী।

বিরাট কোহলিপত্নী আনুশকা শর্মার পক্ষ নিয়ে রবি শাস্ত্রী বলেন, ‘আনুশকা শর্মা যদি সেই কথায় অপমানিত হন, তা হলে তার প্রতিক্রিয়া দেয়ার ন্যায্য অধিকার রয়েছে। তবে গাভাস্কার যাই মনে করুন, আমি কখনও এতটা নিচে নামতে পারতাম না’।

উল্লেখ্য, ২৪ সেপ্টেম্বর দুবাই স্টেডিয়ামে আইপিএলের ষষ্ঠ ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের কাছে ৯৭ রানের বিশাল ব্যবধানে হারে কোহলির ব্যাঙ্গালুরু। এমন বাজেভাবে হারের জন্য ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক কোহলিকে দায়ী করা হয়। কারণ তার হাতেই পর পর দুবার জীবন পেয়ে ১৩২ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেন পাঞ্জাবের অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। ২০৭ রানের বড় টার্গেট ছুড়ে দেয় তারা।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১ রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন কোহলি।

কোহলির এমন বাজে পারফরম্যান্সকে বোঝাতে গিয়ে সেদিন ধারাভাষ্যকার সুনীল গাভাস্কার হিন্দি ভাষায় বলে ওঠেন– ‘ইনহোনে লকডাউন মে বাস আনুশকা কি গেন্দোঁ কি প্র্যাকটিস কি হ্যায়।’ যার বাংলা অর্থ– ‘কোহলি লকডাউনে শুধু আনুশকার বলেই অনুশীলন করেছেন।’

পরে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে ইনস্টাগ্রামে আনুশকা লেখেন– ‘মি. গাভাস্কার, আপনার বার্তাটা খুবই কুরুচিপূর্ণ ছিল। তবে আমি খুশি হব, যদি আপনি আমাকে জানান– ঠিক কী কারণে এমন মন্তব্যের মাধ্যমে একজন স্বামীর খেলার মধ্যে তার স্ত্রীকে টেনে আনা হলো?

তবে শুরু থেকেই সুনীল গাভাস্কারের দাবি– এটা কোনো অশালীন বা কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ছিল না। বেশ কিছু দিন আগে কোহলি ও আনুশকার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে দেখা যায়, আনুশকা বিরাট কোহলিকে বোলিং করছেন।

ওই ভিডিওর প্রসঙ্গই টেনে এসেছিলেন বলে জানান গাভাস্কার।

তথ্যসূত্র: টাইমস নাউ, ক্রিক ট্র্যাকার

এ বিভাগের অন্যান্য