বিতর্ক ভাইস প্রেসিডেন্টের, দক্ষতা দেখাতে হবে প্রেসিডেন্টের

দুই ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর মুখোমুখি বিতর্ক। কিন্তু তাদের দু’জনকেই প্রমাণ করতে হবে, তারা প্রেসিডেন্ট হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দিতে সক্ষম।

পরিস্থিতি এমন হওয়ার কারণ- ইতিহাসে সবচেয়ে বয়স্ক দুই ব্যক্তি মার্কিন নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বয়স চুয়াত্তর বছর।

সর্বোপরি, তিনি প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। অন্যদিকে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের ৭৭ বছর। দুই প্রার্থীর বয়স ও শারীরিক নানা জটিলতার কারণে যে কোনো মুহূর্তে ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা।

এ কারণেই দুই রানিং মেট তথা ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে দেখাতে হবে যে তারা প্রেসিডেন্ট হিসেবে বিশ্বের এক নম্বর অর্থনীতিকে নেতৃত্ব দিতে সক্ষম।

বর্তমানে কমলার বয়স ৫৬ আর পেন্সের ৬১ বছর। গার্ডিয়ান, নিউইয়র্ক টাইমস, সিএনএন।

প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ও ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের মুখোমুখি বিতর্ক মার্কিন গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। স্থানীয় সময় বুধবার (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার) দুই ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী- ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স (রিপাবলিকান) ও সিনেটর কমলা হ্যারিস (ডেমোক্র্যাট) উটাহ অঙ্গরাজ্যের সল্ট লেক সিটিতে মুখোমুখি হচ্ছেন।

প্রথম মুখোমুখি বিতর্কে দুই প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ট্রাম্প ও বাইডেন পরস্পরের বিরুদ্ধে আক্রমাণাত্মক ভূমিকা নিয়েছিলেন। একে অন্যের বক্তব্যে হস্তক্ষেপ করেছেন। ফলে বিতর্কের নিয়মে পরিবর্তন এসেছে। কমলা হ্যারিস ও মাইক পেন্সের মাঝে প্লেক্সিগ্লাস বা স্বচ্ছ প্লাস্টিকের ম্যাটারিয়ালের বিভাজক থাকবে। দুই প্রেসিডেন্টের পরবর্তী বিতর্ক হওয়ার কথা ১৫ অক্টোবর।

অন্যান্য সময় মুখোমুখি বিতর্কে রানিং মেটদের দেখাতে হতো প্রেসিডেন্টের ঘাড়ের কাছে থেকে কীভাবে পরিস্থিতি সামলাবেন। কিন্তু এবার তাদের দেখাতে হবে কীভাবে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করবেন। ধারণা করা হচ্ছে- করোনা আক্রান্ত হওয়ার কারণে ৩ নভেম্বর নির্বাচনের আগেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের দায়িত্ব নিতে হতে পারে পেন্সকে।

অন্যদিকে নির্বাচিত হলে দ্বিতীয় মেয়াদ পর্যন্ত দায়িত্ব চালিয়ে যেতে পারবেন না বাইডেন। সেক্ষেত্রে ২০২৪ সালে তাকে কমলার কাছে বুঝিয়ে দিতে হতে পারে প্রেসিডেন্টের মশাল। এসব কারণে ভাইস প্রেসিডেন্ট বিতর্কে দুই প্রার্থীকে বাড়তি চাপে থাকতে হচ্ছে।

ডিসকো ড্যান্সার থেকে হোয়াইট হাউসের পথে : নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে ততই জরিপে ট্রাম্পকে পেছনে ফেলছেন জো বাইডেন। সেই সঙ্গে বাড়ছে কৃষ্ণাঙ্গ কমলা হ্যারিসের ভাইসে প্রেসিডেন্ট ও পরে প্রেসিডেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা। ভারতীয় মা ও জ্যামাইকান বাবার সন্তান কমলার এই চলার পথ বহু বাঁকের।

মজার বিষয় হচ্ছে, মাত্র ১৩ বছর বয়সে টিনেজ ডিসকো ড্যান্সার ছিলেন কমলা হ্যারিস। ডায়ানা রোজ ও মাইকেল জ্যাকসনের সঙ্গে নাচতে চাইতেন তিনি। কমলার ভারতীয় মা ড. শ্যামলা গোপালান হ্যারিস ও অর্থনীতিবিদ বাবা ডোনাল্ড জে. হ্যারিসের মধ্যে বিচ্ছেদ হওয়ার পর মাত্র ১২ বছর বয়সী কমলা ও আরেক কন্যা মায়াকে নিয়ে কানাডার মন্ট্রিলে চলে যান শ্যামলা।

সেখানে স্কুলে ভর্তি হওয়ার পর সবাইকে দুটি গ্রুপে থাকতে হতো। একটি হচ্ছে শ্বেতাঙ্গ গ্রুপ। আরেকটি কৃষ্ণাঙ্গ। কৃষ্ণাঙ্গরা স্বাভাবিকভাবেই বিভিন্ন বৈষম্যের শিকার হতো। আর এসব বৈষম্য থেকে নিজেকে ও কমিউনিটির সদস্যদের রক্ষা করার জন্য আইনজীবী হতে চাইতেন কমলা।

কানাডায় ১৩ বছর বয়সে লনে বাচ্চাদের খেলতে না দেয়ার প্রতিবাদে সহপাঠীদের নিজেদের অ্যাপার্টমেন্ট ভবনের সামনে প্রতিবাদ করার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন কমলা।

একপর্যায়ে সমমনা মেয়েদের একটি ড্যান্স গ্রুপ- ‘সুপার সিক্স’র সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। মধ্যরাতে বিভিন্ন পার্টিতে নাচতো তারা। কমলার বান্ধবী কাগান বলেন, বাদামি ও কৃষ্ণাঙ্গ ছয় মেয়ে ছিলাম আমরা। ডান্স ফ্লোরে কমলা ছিলেন নিজের জাত চেনানো ব্যতিক্রমী।

এ বিভাগের অন্যান্য