আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাতে মধ্যস্থতার প্রস্তাব ইরানের

নাগোরনো-কারাবাখ এলাকার কর্তৃত্ব নিয়ে চলা আর্মেনিয়া-আজারবাইজান সংঘাতে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছে ইরান।

দেশটি জানিয়েছে, সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সবরকম চেষ্টা তারা করবে। তবে এখন পর্যন্ত ইরানের এ প্রস্তাবে কোনো দেশই সাড়া দেয়নি বলে ডয়চে ভেলের খবরে বলা হয়েছে

আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান দুইটি দেশেরই সীমান্তে অবস্থিত ইরান। তাই যুদ্ধ থামাতে ইরানও পদক্ষেপ নিয়েছে। দুইটি দেশকেই শান্তিপূর্ণ ভাবে বৈঠকে বসার আবেদন জানিয়েছে ইরান।

সম্প্রতি আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হওয়ার পর ইরানের সীমান্তবর্তী কয়েকটি গ্রামে রকেট ও ক্ষেপণাস্ত্র এসে পড়েছে। এর ফলে ইরানের এক শিশু আহত হয়েছে। দু’টি দেশের সঙ্গেই ইরানের স্থলসীমা রয়েছে।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদেহ বলেছেন, ইরানের সীমানায় কোনো পক্ষের আঘাতই সহ্য করা হবে না।

মঙ্গলবার ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনীর উপদেষ্টা আলী আকবর বেলায়েতি আজারবাইজানের দখলীকৃত ভূখণ্ড থেকে সরে যেতে আর্মেনিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা যেমনিভাবে ইসরাইলের মাধ্যমে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখলের বিরোধী তেমনি কারাবাখ ইস্যুতেও দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান।

এদিকে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ বলেছেন, নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে যে কোনো শান্তি প্রক্রিয়ায় তুরস্ককে যুক্ত করতে হবে।

অন্যদিকে আর্মেনিয়া জানিয়েছে, দুই দেশের সংঘাতে তুরস্কের ভূমিকা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অভিযোগ জানানো হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য