স্বাস্থ্যের কোটিপতি গাড়িচালক মালেক কারাগারে

স্বাস্থ্য অধিদফতরের কোটিপতি গাড়িচালক আবদুল মালেক ওরফে হাজী আবদুল মালেককে (৬৩) রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী এ আদেশ দেন।

অস্ত্র এবং জাল টাকার পৃথক দুই মামলায় ১৪ দিনের রিমান্ড শেষে এদিন আসামিকে আদালতে হাজির করে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। অপরদিকে আসামিপক্ষে জামিন আবেদন করা হয়। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামির জামিন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর ওই আদেশ দেন।

গত ২১ সেপ্টেম্বর মালেককে আদালতে হাজির করে দুই মামলায় ১৪ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে তুরাগ থানা পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত ১৪ দিনেরই রিমান্ডের আদেশ দেন। এরও আগে গত ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে রাজধানীর তুরাগ থেকে মালেককে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ওই সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, পাঁচ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ টাকার জালনোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাব-১ এর পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন।

এদিকে পুলিশ আদালতে এক প্রতিবেদন দিয়ে জানায়, আবদুল মালেক ডিজি’র (স্বাস্থ্য ও শিক্ষা) গাড়িচালক। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ সরকারি গাড়ি চালক সমিতির সভাপতি হিসেবে ২০ থেকে ২৫ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। কর্মস্থলে তিনি খুবই প্রভাবশালী। এছাড়া তিনি দীর্ঘদিন ধরে জাল টাকার ব্যবসাসহ নিজ কর্মস্থলে সাংগঠনিক পদবিকে কাজে লাগিয়ে বদলি ও নিয়োগ বাণিজ্য করে অবৈধভাবে বিপুল পরিমাণ বিত্ত-বৈভবের মালিক হয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য