সিলেটে জানান দিলো শিবির, ‘জানতো না’ পুলিশ

দীর্ঘদিন ধরেই মাঠছাড়া যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর ছাত্রসংগঠন ছাত্রশিবির। যুদ্ধাপরাধ ইস্যুতে কোণঠাসা হয়ে পড়া সংগঠনটি সরকারের কঠোর অবস্থানের কারণে মাঠে তেমন কার্যক্রম নেই। তবে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে ধর্ষণ ইস্যুতে রোববার (৫ অক্টোবর) সিলেটে বড়সড় শো-ডাউন করেছে তারা।

ধর্ষণের প্রতিবাদে রোববার সিলেট নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করে শিবির। মিছিলে কয়েকশ’ মানুষ অংশ নেন।

তবে পুলিশ বলছে, শিবিরের মিছিলের বিষয়টি তারা জানতো না। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলেও কাউকে পাওয়া যায়নি।

বিভিন্ন মহল থেকে যুদ্ধাপরাধের কারণে জামায়াত-শিবির নিষিদ্ধের দাবি উঠলেও এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। যদিও জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন।

জানা গেছে, রোববার (৪ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় নগরীর বন্দরবাজারস্থ সুরমা পয়েন্ট থেকে সিলেট মহানগর ছাত্রশিবিরের ব্যানারে মিছিল বের করে। মিছিলটি শেখঘাট জিতু মিয়ার পয়েন্টে এসে শেষ হয়। এরপর তারা সেখানে সমাবেশও করে। এসময় বক্তব্য রাখেন ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগর সভাপতি মামুন হোসাইন। সিলেট মহানগর ছাত্রশিবির সেক্রেটারি সাইফুল ইসলাম, শাবিপ্রবি সভাপতি নজরুল ইসলাম, জেলা পূর্বের সভাপতি রুকন উদ্দিন, সেক্রেটারি মানসুর আহমদ, জেলা পশ্চিমের সভাপতি মিজানুর রহমানকেও মিছিলে দেখা গেছে।

শিবিরের মিছিলের ব্যাপারে সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ বলেন, শিবির হঠাৎ করেই নগরীতে মিছিল বের করে। পুলিশ এ ব্যাপারে আগে থেকে কিছু জানতো না।

তিনি বলেন, আগামীতে শিবির যাতে সিলেটে এমন ঝটিকা কর্মসূচি পালন করতে না পারে সে বিষয়ে পুলিশ সতর্ক থাকবে।

এর আগে গত বুধবার ছাত্রলীগের কার্যক্রম নিষিদ্ধসহ ৮ দফা দাবিতে কলেজ প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে এমসি কলেজ ছাত্রশিবির। বৃহস্পতিবার দুপুরে এমসি কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. সালেহ আহমদের হাতে স্মারকলিপি তুলে দেন এমসি কলেজ ছাত্রশিবির সভাপতি ইমদাদুল হক ও সেক্রেটারি শাহীন আহমদ।

এ বিভাগের অন্যান্য