শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল তেহরান

ইরানের রাজধানী তেহরান ও এর আশপাশের শহরগুলোতে শক্তিশালী ভূমিকম্প হয়েছে।

ইরানের ভূতত্ত্ব পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ১২টা ৪৮ মিনিটে তেহরানের দামাভান্দ শহরে ৫ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। এটির মূলকেন্দ্র ছিল ভূগর্ভের মাত্র ৭ কিলোমিটার গভীরে। এই ভূ-কম্পন কয়েক সেকেন্ডে স্থায়ী ছিল।

এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে শহরের ঘরবাড়ি। এতে তেহরানের বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয় এবং অনেকে বাসাবাড়ি ছেড়ে সড়কসহ খোলা স্থানে আশ্রয় নেন।

ভূমিকম্পে জানমালের ক্ষতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। তবে তেহরান ও দামাভান্দ শহরে তড়িঘড়ি করে ঘর থেকে বের হতে গিয়ে একজন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন।

ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল ছিল পূর্ব তেহরান থেকে ৫৫ কিলোমিটার দূরে। ৫ দশমিক ১ মাত্রায় আঘাত হানার আগে ২ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্পে তেহরান কেঁপে ওঠে এবং এর পর আরও অন্তত ১৬ বার ভূ-কম্পন অনুভূত হয়।

ইউএসজিএস তাদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে, ভূ-কম্পের মূল অবস্থান ছিল মাটি থেকে ১০ কিলোমিটার গভীরে। এর কেন্দ্রস্থল ছিল ইরানের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ সক্রিয় আগ্নেয়গিরি দামাভান্দের দক্ষিণে।

ইরানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুর রেজা রাহমানি ফাজলি এ ভূমিকম্পে সম্ভাব্য ক্ষতি নিরূপণের জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তেহরান সিটি কর্পোরেশন এবং জরুরি ত্রাণ ও উদ্ধার বিভাগকে নির্দেশ দিয়েছেন।

গত দুই বছরে এটি তেহরানে সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প। ২০১৮ সালে তেহরানের নিকটবর্তী মালার্দ শহরে ৫ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল। গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ভূমিকম্প হয় ২০১৭ সালের নভেম্বরে ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় কেরমানশাহ প্রদেশে। ৭ দশমিক ৩ মাত্রার ওই ভূমিকম্পে কয়েকশ মানুষ মারা যান।

এ বিভাগের অন্যান্য