নিউ জিল্যান্ড করোনামুক্ত, দাবি দেশটির প্রধানমন্ত্রীর

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বন্ধ করা সম্ভব হয়েছে বলে ঘোষণা দিয়েছে নিউ জিল্যান্ড। এখনকার মতো ‘করোনা যুদ্ধে’ জিতে গেছেন বলে দাবি করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন। বিবিসির খবর।

নিউ জিল্যান্ডে এক হাজার ১২২ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৯ জন। গত কয়েকদিন ধরে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা এক অঙ্কে নেমে আসে দেশটিতে, রোববার নতুন করে মাত্র একজন আক্রান্ত হয়েছেন।

দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অ্যাশলি ব্লুমফিল্ড বলেন, ‘গত কয়েক দিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কমে আসায় করোনাভাইরাস দূর করার জন্য সরকার যে লক্ষ্য ঠিক করেছে, তা আমরা অর্জন করতে পেরেছি বলে আমাদের বিশ্বাস।’

জেসিন্ডা আর্ডান বলেন, ‘নিউ জিল্যান্ডে এখন অ-শনাক্তকৃত কোনো কম্যুনিটি সংক্রমণ নেই। সে যুদ্ধে আমরা জিতেছি। কিন্তু আমাদের অবস্থাটা যেন এমনই রাখতে পারি সে ব্যাপারে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।’

এদিকে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সামাজিক মেলামেশার ক্ষেত্রে নেয়া কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করছে দেশটি।

মঙ্গলবার থেকে সীমিত আকারে চালু হচ্ছে জরুরি সেবার বাইরেও কিছু ব্যবসায়িক খাত, স্বাস্থ্যসেবা এবং শিক্ষা ব্যবস্থা।

তবে করোনা রোধে এই সাফল্যে কেউ যেন ‘আত্মপ্রসাদে’ না ভোগেন, সে বিষয়ে কর্মকর্তারা সতর্ক করেছেন।

লকডাউন তুলে নেয়া হলেও বেশিরভাগ মানুষকে সারাক্ষণ ঘরের মধ্যে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে সেইসঙ্গে সব ধরণের সামাজিক মেলামেশা বন্ধ রাখতে হবে।

আরডার্ন বলেন, ‘আমরা অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু করছি, কিন্তু মানুষের সামাজিক জীবন এখনই আবার চালু করা হচ্ছে না।’

তবে আরডার্ন এবং অ্যাশলি দুজনই সতর্ক করেছেন যে, ভাইরাস নির্মূল হবার ঘোষণা দেয়ার মানে এই নয় যে দেশে করোনায় আক্রান্ত কেউ আর নতুন করে শনাক্ত হবেন না।

এ বিভাগের অন্যান্য