আ.লীগ নেতা নাদেলের নামে ‘চাঁদাবাজি’, ফাঁদ পেতে প্রতারক আটক

সিলেটে ফাঁদ পেতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের নামে চাঁদাবাজি করার অভিযোগে এক প্রতারককে আটক করা হয়েছে।

শনিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে নগরীর নির্ভানা ইন হোটেলে ফাঁদ পেতে তাকে আটক করেন নাদেলের সহকর্মী ও পুলিশ।

আটককৃত প্রতারকের নাম রাজীব রয়। তিনি ১৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও হিন্দু কল্যান ট্রাস্টের ট্রাস্টি চন্দন রায়ের ছোট ভাই। তাকে বর্তমানে কোতোয়ালি থানাহাজতে রাখা হয়েছে।

শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের রাজনৈতিক সহকর্মীরা জানান, আজ সকালে নগরীর সিলেট কমার্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ মুহিবুর রহমানের কাছে ফোন করে করোনাভাইরাসে অসহায়দের সহায়তার অজুহাতে চাঁদা দাবি করেন রাজীব। এ সময় শফিউল আলম চৌধুরীর সহকর্মীদের বিষয়টি জানান ওই শিক্ষা উদ্যোক্তা। খবর পেয়ে পুলিশের সহায়তায় নগরীর মির্জাজাঙ্গাল এলাকায় একটি আবাসিক হোটেলের সামনে ফাঁদ পাতেন নাদেলের সহকর্মীরা।

টাকা নিতে এসে সেই ফাঁদে হাতেনাতে ধরা পরেন প্রতারক রাজীব রয়। এ সময় পুলিশ তাকে কোতোয়ালি থানা হেফাজতে নিয়ে যায়।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সেলিম মিয়া জানান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগে একজন আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিলেট মহানগর যুবলীগ নেতা এহিয়া চৌধুরী সুমন জানান, আজ পুলিশের সহযোগিতা নাদেল ভাইয়ের নামে চাঁদাবাজি করা প্রতারককে আটক করা হয়েছে। আটককৃত রাজীব এর আগেও শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের নাম করে, বিভাগীয় খাদ্য অধিদপ্তর, রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ, পার্কভিউ মেডিকেলসহ আরও বিভিন্ন স্থানে চাঁদা দাবি করেছে। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি কোতোয়ালি থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য