নগরীতে অভিনব কায়দায় একের পর এক মোবাইল ছিনতাই

রোববার দুপুরে নগরীর জিন্দাবাজার এলাকার সুপারশপ স্বপ্ন থেকে বাজার করে বেরিয়েছিলেন প্রকাশক রাজিব চৌধুরী। এসময় মোটর সাইকেলে করে এক যুবক রাজিবের সামনে এসে জানায়, তার মোবাইলটি হারিয়ে গেছে। যুবকের কথা শুনে নিজের মোবাইল নাম্বার থেকে ওই যুবকের মোবাইলে কল দেন রাজিব। কল রিসিভ করে একজন জানান, তিনি মোবাইল ফোনটি কুড়িয়ে পেয়েছেন। এখন তিনি জেলরোড এলাকায় রয়েছেন।

এরপর মোবাইল হারিয়েছে দাবি করা যুবকের অনুরোধে তার সাথে মোটর সাইকেলে করে জেল রোড এলাকার হোটেল অনুরাগের সামনে যান রাজিব। সেখানে গিয়ে আবারও নিজের মোবাইল থেকে ওই নাম্বারে কল দেন। কল ধরিয়ে নিজের মোবাইল ফোনটি তুলে দেন মোটরসাইকেল চালক যুবকের হাতে। এদিকে, রাজিবের মোবাইল ফোন হাতে পাওয়ার পর ওই যুবকটি দ্রুত মোটরসাইকেল করে পালিয়ে যান। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবিহবল হয়ে পড়েন রাজিব।

প্রকাশনা সংস্থা চৈতন্য প্রকাশনীর কর্ণধার রাজিব চৌধুরী বলেন, আমি লোকটির উপকার করতে চেয়েছিলাম। অথচ কিছু বুঝে উঠার আগেই লোকটি আমার মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আমি কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি।

এমন অভিনব কায়দায় মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা এই প্রথম নয়। সাম্প্রতিক সময়ে এরকম আরও একাধিক ঘটনা ঘটেছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে সিলেট জেলা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে রাস্তাঘাট প্রায় ফাঁকা। এই সুযোগে বেড়েছে এমন অভিনব ছিনতাইয়ের ঘটনা।

গত ১ এপ্রিল নগরীর ধোপাদিঘীর পাড় থেকে একই কায়দায় ছিনতাইকারীরা দৈনিক যুগভেরীর সংবাদকর্মী দিলীপ বিশ্বাসের মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।

সেদিন নগরীর বন্দরবাজার থেকে মোবাইল হারিয়ে যাওয়ার কথা বলে দিলীপকে মোটর সাইকেলে তুলে এক যুবক। এরপর ধোপাদিঘীর পাড়ের হাফিজ কমপ্লেক্সের সামনে গিয়ে নিজের হারিয়ে যাওয়া নাম্বারে কল দেওয়ার জন্য দিলীপের ফোন নেয়। ফোন হাতে নেওয়ার পরই মোটর সাইকেলযোগে দ্রুত সটকে পড়ে যুবক।

এ ঘটনায়ও কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন দিলীপ বিশ্বাস। তবে এখন পর্যন্ত মোবাইল ফোনের কোনো সন্ধান পাননি এবং পুলিশের পক্ষ থেকেও কোনো যোগাযোগ করা হয়নি বলে জানান দিলীপ।

তবে এসব ঘটনাকে ছিনতাই বলতে নারাজ সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম মিঞা। তিনি বলেন, এগুলো প্রতারণা। লকডাউনে ফাঁকা রাস্তা পেয়ে কিছু প্রতারক সুযোগ নিচ্ছে। এ ব্যাপারে নাগরিকদেরও সচেতন থাকতে হবে। আমরাও এদের খোঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছি।

 

এ বিভাগের অন্যান্য