চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ, আটক ১

নিউজ ডেস্ক: হবিগঞ্জ শহরের উমেদনগর গ্রামে চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে এক শিশুকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অসুস্থ অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই শিশু (৮) শহরতলীর উমেদনগর গ্রামের অধিবাসী। এ ঘটনার পর রাতেই অভিযুক্ত ধর্ষক শাহিন মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় ওই শিশুর পিতাসহ পরিবারের সদস্যরা মঙ্গলবার সকালে তাকে ঘরে একা রেখে কাজে চলে যায়। এ সুযোগে প্রতিবেশী শাহীন মিয়া নামে এক যুবক তার শিশু কন্যাকে চকলেটের প্রলোভন দিয়ে তার নিজ ঘরে নিয়ে যায়। পরে দরজা বন্ধ করে মুখে কাপড় দিয়ে তাকে ধর্ষণ করে ওই লম্পট। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কাজ শেষে বাড়ি ফিরলে বিষয়টি তাদেরকে অবগত করে শিশুটি। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। লম্পট শাহীন ওই গ্রামের ভাড়াটিয়া বাসিন্দা এবং তার স্ত্রী প্রবাসে রয়েছে বলেও জানা গেছে।

শিশুর মা জানান, আমার অবুঝ শিশুটিকে একা পেয়ে লম্পট শাহীন জোরপুর্বক ধর্ষণ করেছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার চাই।

হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ মোল্লা আবিদুর রেজা জানান, ধর্ষণের অভিযোগ এনে শিশুটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার তার ডাক্তারী পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হবে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার (ওসি) মো. মাসুক আলী জানান, ঘটনার সাথে জড়িত শাহিনকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে সে শিশুটিকে ঘরে নিয়েছে বলে স্বীকার করলেও ধর্ষণের কথা এখনও স্বীকার করেনি।

এ বিভাগের অন্যান্য