সোবহানীঘাটে চালককে মারধরের অভিযোগে সড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক: সিলেট নগরীর সোবহানীঘাটে ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে এক চালককে মারধরের অভিযোগে সড়ক অবরোধ করে রাখেন ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান শ্রমিকরা। বেলা ৩টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধের ফলে ওই এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। গুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক বন্ধ থাকায় যানজট ছড়িয়ে পড়ে পুরো শহরজুড়ে। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে দু’পক্ষের মধ্যস্থতায় অবরোধ তুলে নেয় পরিবহন শ্রমিকরা।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) ৩টার দিকে সোবহানীঘাট পয়েন্টে নাসিরউদ্দিন নামে এক পিকআপ চালকের সাথে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্য কাজলের কথাকাটাকাটি হয়।

কাজলের অভিযোগ, গাড়ি থামানোর সিগন্যাল দেওয়ায় চালক নাসির উদ্দিন তার পায়ের উপর গাড়ি তিলে দেন।

আর নাসির উদ্দিনের অভিযোগ, কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে ট্রাফিক পুলিশ সদস্য কাজল তাকে মারধর করে পাশ্ববর্তী সোবহানীঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ভেতরে নিয়ে যান।

এদিকে, এক চালককে মারধরের খবর পেয়ে ট্রাক-পিকআপ ভ্যান শ্রমিকরা জড়ো হয়ে সোবহানীঘাট এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করেন। এসময় সোাবহানহানীঘাট-শাহজালাল সেতু সড়কের বিভিন্ন স্থানে পিকআপ আড়াআড়ি করে রেখে তারা সড়ক অবরােধ করেন। কিছুক্ষণের মধ্যে এ্ই সড়কসহ আশপাশের সড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। যানজটে আটকা পড়ে কয়েকশ গাড়ি।

যানজট ও শ্রমিক বিক্ষোভের খবর পেয়ে সাড়ে ৩টার দিকে ঘটনাস্থলে আসেন মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার আজবাহার আলী শেখ। তিনি ঘটনাস্থলে পৌছলে তার প্রতিও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে পরিবহন শ্রমিকরা।

পরে উপ পুলিশ কমিশনার দুই পক্ষের বক্তব্য শুনে তদন্ত সাপেক্ষে দোষি পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে পরিবহন শ্রমিতরা শান্ত হয়। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে অবরোধ তুলে নেয় তারা। এরপর এই সড়কে শুরু হয় যান চলাচল।

এ বিভাগের অন্যান্য