বৃহস্পতিবার, ০৭ ফেব্রু ২০১৯ ০৫:০২ ঘণ্টা

সিলেটে বইমেলায় পাঠকের নজর কেড়েছে রানাকুমার সিংহের দুটি ছড়া গ্রন্থ

সিলেটে বইমেলায় পাঠকের নজর কেড়েছে রানাকুমার সিংহের দুটি ছড়া গ্রন্থ

মুরগি পাড়ে হাঁসের ডিম ও সন্ধেরা জমা থাকে ভাঙা জানালায়
স্টাফ রির্পোটার:
এক দুই করে গুণতে গুণতে অষ্টম দিন পাড়ি দিচ্ছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। চতুর্থবারের মতো এবারও সিলেটে সিলেটে সিটি কর্পোরেশনের সহযোগিতায় আয়োজিত প্রথম আলো বইমেলা শুরু প্রথম দু-চার দিন লেখক-পাঠক ও ক্রেতাদের তেমন উপস্থিতি চোখে না পড়লেও বৃহস্পতিবার বিকেলে দর্শক-ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। কিশোর-কিশোরীদের উপস্থিতিও মেলা প্রাঙ্গণকে যেন আরও রঙ্গিন করে তুলেছে। ভাষার মাসজুড়ে প্রাণের এই বইমেলা সবার কাছে এক ভিন্ন আবেদন সৃষ্টি করে। বইপ্রেমীদের পাশাপাশি এই সময়টাতেই নবীন প্রবীণ লেখকরা একমঞ্চে মিলিত হন। মাসব্যাপী চলে বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন ও পছন্দের লেখকের বই সংগ্রহ। বইমেলাকে ঘিরে দেখে মিলে বিভিন্ন শ্রেণির পাঠকের। কেউ ভালোবাসে কবিতা, উপন্যাস আবার কেউ ভালোবাসে সায়েন্স ফিকশনের বই। আবার কেউ কেউ আসেন পছন্দের লেখকের বই কিনতে। ছোটদের জন্য থাকে শিশুতোষ বইয়ের স্টল। মেলার প্রথমদিনেই প্রকাশিত হয়েছে অনেক নতুন বই। গতকাল প্রকাশিত হয়েছে, ছাড়া গ্রন্থ মুরগি পাড়ে হাঁসের ডিম ও কবিতাগ্রন্থ – সন্ধেরা জমা থাকে ভাঙা জানালায় গ্রন্থ দুটির পাঠকের নজর কেড়েছে। গ্রন্থদ্বয়টি লিখেছেন নব্বই দশকের শক্তিমান ছড়াকার ও কবি রানাকুমার সিংহ। নাগরী প্রকাশিত বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে। সন্ধেরা জমা থাকে ভাঙা জানালায় গ্রন্থে মোট ৬০টি কবিতা গ্রন্থিত হয়েছে । অধিকাংশ কবিতাই সুখপাঠ্য; মনে হয় যেন কবিতাগুলো কিছু একটা বলছে পাঠককে, বোঝা-না বোঝার অন্তরালে থাকো সে ভাব ও বাণীর আভাস আমাদেরকে কেমন ভাবাতুর করে তোলে, অনুসন্ধিৎসু করে। অনেক কবিতাতেই উপমা-প্রতীক-চিত্রকল্পের অপরূপ বিস্তার কবিতাকে রহস্যময়ী রমণীর মতোই আকর্ষণীয় করে তোলে। এরকম দু’একটি নমুনা -‘সবুজ পাতার যৌবন ছুঁয়ে বর্ষার/ কফোঁটা জল নাচে কত্থক মুদ্রায় তখনও দূর থেকে ভেসে আসা কিছু হাহাকার/চোখের কোণায় ধরে আরেক বর্ষা/ তবু নাকাল হৃদয় খুঁজে ফিরে ছায়ামুখ, উন্মুখ ..নীরবে রচিত হয় বর্ষার জলে আঁকা দরদি আখ্যান . (বর্ষাখ্যান) ২.‘নির্ঘাত ডুবেছি অন্তরালে/ জোনাকিরা খোঁজে হয়রান/ কুয়াশায় ঢাকে চোখ /চাঁদও লুকায়/ কোন গ্রহের পকেটে (অন্তরালে) মুরগি পাড়ের হাঁসের ডিম-গ্রন্থে ৭৪ টি ছড়্া সমাজের নানা অসঙ্গতি ছন্দের কারুকাজে চিত্রিত হয়েছে । দৈনন্দিন জীবনের অব্যবস্থাপনা রঙ্গরসের মাধ্যমে সুপাঠ্য করেছেন তিনি । একইভাবে বৈশ্বিক নানা বিষয়ও তাঁর ছড়ার উপজীব্য হয়েছে । যেমন- /ইউ এস এ , রাশিয়া /হাঁক ছেড়ে , কাশিয়া- /পটকা ফোটায় দেখো /খুব ভালোবাসিয়া ! ছড়াকার ও কবি রানাকুমার সিংহ,শিক্ষাগত জীবনে স্নাতকাত্তর ও এল এল বি ডিগ্রীধারী রানাকুমার সিংহ পেশাগতভাবে একটি শীর্ষস্হানীয় বেসরকারি কোম্পানীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তা । তাঁর পৈত্রিক নিবাস মৌলভীবাজার হলেও জন্ম ও বেড়ে ওঠা সিলেটেই এবং এখানেই স্থায়ী হয়েছেন নব্বই দশকের গেড়াা থেকে ছড়া লিখে অধিক পরিচিত হলেও সমানতালে কবিতা , গল্প, প্রবন্ধ ও উপন্যাস লিখছেন । বিভিন্ন পত্রিকা ও লিটলম্যাগে তাঁর বহুলেখা প্রকাশিত হয়েছে । শিশুসাহিত্য নিয়ে উল্লেখযোগ্য কাজ করে চলেছেন ।

সর্বশেষ সংবাদ

পাঠক

Flag Counter