বুধবার, ০৯ জানু ২০১৯ ০৮:০১ ঘণ্টা

ক্যাম্পাস: নিজেকে প্রস্তুত করার প্রত্যয়

ক্যাম্পাস: নিজেকে প্রস্তুত করার প্রত্যয়

আমরা শুভেচ্ছা বিনিময়ের পাশাপাশি অপূরণীয় অনেক স্বপ্ন দেখি। গতানুগতিক বছর পেরিয়ে বছর আসা-যাওয়া করে, কিন্তু আমাদের সামষ্টিক জীবনে কোনো পরিবর্তন সূচিত হয়েছে কি না এ নিয়ে আমাদের ভাবনা আদৌ কতটুকু? তবে ভালো থাকার প্রত্যাশা থাকে সবার। সব ধরনের স্থবিরতা কাটিয়ে নতুন বছর সবার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল আনন্দ। দেশে ফিরে আসুক শান্তি, সমৃদ্ধি, স্বস্তি ও গতিময়তা। নতুন বছরে আমাদের তরুণ প্রজন্ম কি ভাবছে? বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া কয়েকজন তরুণের সাথে কথা বলে জানাচ্ছেন- রুমান

হাফিজ

ইতিবাচকতার দৃশ্য ছড়িয়ে যাক

—মাহফুজুর রাহমান

বাংলা বিভাগ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

‘নতুন বছর নিয়ে আমার প্রত্যাশা থাকবে আমাদের দেশের গ্রাম, শহর এবং দেশের আনাচে-কানাচে যে সকল মানুষ বসবাস করছে, তারা সবাই যেন তাদের প্রাপ্য অধিকার নিয়ে চলতে পারে। আমরা বাঙালি জাতি এবং বাংলাদেশি হিসেবে সবাই যেন একই গাঁথায় থাকতে পারি। আমার চাওয়া থাকবে আমাদের দেশটাতে যেন গণতন্ত্রের অপব্যবহার না করা হয়। শিক্ষাক্ষেত্রে আরো বেশি বিনিয়োগের পাশাপাশি উন্নত, বাস্তবসম্মত শিক্ষার ব্যাপারে নজরদারি করা। আমার ব্যক্তিগত পরিকল্পনায় থাকবে সামনে যেখানেই নেতিবাচক পরিবেশ দেখবো, সেখানেই ইতিবাচকতার ছোঁয়া লাগাতে চেষ্টা করবো। সব মিলিয়ে, আমরা যেন সত্যিকার অর্থেই একটা সোনার বাংলায় বসবাস করতে পারি সে রকমভাবে যেন সকল পরিকল্পনা নেওয়া হয় এবং বাস্তবায়ন করা হয় সেই কামনা রইলো।’

প্রাপ্তির আনন্দে এগিয়ে যেতে চাই

—তাহমিনা হামিদ ঐশী

মার্কেটিং বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

‘যদিও নতুন বছরে বিশেষ কোনো রেজুলেশন থাকে না, তবু আমার কাছে প্রত্যেকটা নতুন বছরই স্পেশাল। নতুন বছর মানেই যে নিজের সব ইচ্ছে পূর্ণতা পাবে এমনটা আশা করি না। তবে ভবিষ্যতে যাই থাকুক না কেন, নিজের মনোবল অটুট রাখতে চাই। পুরোনো বছরের না পাওয়ার হতাশাগুলোকে ভুলে, অজস্র প্রাপ্তির আনন্দকে মনে ধারণ করে আরো একধাপ এগিয়ে যেতে চাই। জগতের সকলের ভালো ইচ্ছেগুলো বাস্তবতার আলো দেখুক এই প্রার্থনা রাখি।’

নিজেকে প্রস্তুত করার প্রত্যয়

—মাসরুবা তাসমিন সুহা

একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

‘নতুন বছর প্রাপ্তি আর প্রত্যাশার বছর হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে নিজেকে প্রস্তুত করা এবং পুরানো বছরের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানো হবে মূল উদ্দেশ্য। সবসময়ই চেষ্টা করেছি মানুষের বিপদে পাশে থাকার। সেই চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। অন্যের খুশিতে নিজের আনন্দ খুঁজে বের করা আমার নিয়মিত অভ্যাস। দেশকে ভালোবাসবো আর নিয়মকানুন মেনে চলবো। অন্যদের এ বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করবো। অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকবো। সত্যকে স্বীকার করার সত্ সাহস রাখবো। সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য বর্তমানকে প্রতিষ্ঠিত করা হবে অন্যতম লক্ষ্য।’

স্বপ্নের পথকে আরো এগিয়ে নেবো

—তাসফিয়া ফারাহ

ইংরেজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

‘প্রতিটি বছরই আসে নতুন সম্ভাবনার বার্তা নিয়ে। ২০১৯ সালে আমি নিজের শিক্ষাগত উন্নতি ও জ্ঞানের আরো সমৃদ্ধি প্রত্যাশা করি। এই লক্ষ্যে আমার পরিকল্পনার প্রথম ধাপ হলো একাডেমিক পড়াশোনায় আরো মনোযোগী হওয়া। শুধু তা-ই নয়, একাডেমিক বইয়ের বাইরেও সাহিত্য, দর্শন, রাজনীতি, ধর্মতত্ত্ব, বিজ্ঞান, সংগীত ও আরো নানা বিষয়ে বই পড়ার অভ্যাস বৃদ্ধি করা আমার লক্ষ্যের দ্বিতীয় ধাপ। এছাড়াও আমি আমার অন্যতম ভালোবাসা সংগীতের জায়গা থেকেও অনুশীলন চালিয়ে যেতে চাই। সর্বোপরি, এই নতুন বছরে আমি পৃথিবীকে সেবা দেওয়ার জন্য নিজের প্রস্তুতিকে আরো জোরদার করতে চাই।’

নতুন বছর হোক সমৃদ্ধি আর উদ্ভাবনের

—আতিকুর রহমান সুমন

ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

‘অতীতের ব্যর্থতা গ্লানি মুছে নতুনভাবে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখি। নববর্ষ যেমন একজন ব্যক্তির কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তেমনি একটা জাতির জন্যেও অনেক তাত্পর্যপূর্ণ। আমাদের দেশের জন্য এ নববর্ষটি আরো গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই নববর্ষে আমরা একটি নতুন সরকার পেতে যাচ্ছি। সম্প্রতি হয়ে যাওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোট নিরঙ্কুশ জয়লাভ করেছে। আমাদের আশা নববর্ষে নতুন সরকার নতুন করে এবং আরো বেশি জাতীয় সমৃদ্ধিতে কাজ করবে। আমাদের পূর্বে যে সমৃদ্ধি আমরা অর্জন করেছি আগামী বর্ষে তার ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। পাশাপাশি আমাদের তরুণ সমাজের নববর্ষের শুরু হোক উদ্ভাবনীমূলক কর্মপরিকল্পনা নিয়ে। আমি বিশ্বাস করি আমাদের প্রত্যেকের ভালো পরিকল্পনাগুলো সম্পন্ন করার প্রত্যয় নিয়ে যদি আমরা নতুন বছর শুরু করি তবে শুধু ব্যক্তিগতই নয় বরং দেশের সামগ্রিক উন্নতি হবে। আগামীর দিনগুলো আমাদের হোক।’

সর্বশেষ সংবাদ

পাঠক

Flag Counter